জাতীয়

সিসি ক্যামেরার ভবিষ্যৎ দুটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে

ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি – নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বলেছেন, দুটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে সংসদ নির্বাচনে সিসি ক্যামেরা ব্যবহারের সিদ্ধান্ত। সেগুলোর সমাধান হলেই এই যন্ত্র ব্যবহার করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর নির্বাচন ভবনের নিজ দফতরে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন।

ছয় সংসদীয় উপ-নির্বাচনে সিসি ক্যামেরার ব্যবহার অর্থাভাবে বন্ধ হলে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে কী করবেন-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অর্থটা তো বাৎসরিক ভিত্তিতে দেওয়া হয়। বর্তমান অর্থ বছরে যে টাকা দেওয়া আছে, যেসব নির্বাচনে সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করেছি সেগুলোর ব্যয় কিন্তু এক্সিজটিং টাকার মধ্যেই। সরকারের কাছে আমরা এক্সট্রা বাজেট চাইনি। এই আর্থিক মন্দার মধ্যে আমাদের চাওয়াও যুক্তিযুক্ত না। এখন যে টাকা আছে এই টাকা দিয়ে যে পাঁচ-ছয়টি উপ-নির্বাচন হবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি, সেখানে সিসি ক্যামেরা দেওয়ার টাকা তো আমাদের কাছে নাই। সিসি ক্যামেরার জন্য আমাদের কোনো বাজেট ছিল না। এক্সিজটিং টাকা থেকে করেছি। এখন তো টাকা নাই।

তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচন হবে তখন তো পরবর্তী অর্থবছরের বাজেট থেকে ব্যয় হবে। তখন কী লাগবে না লাগবে সেটা ধরে আমরা বাজেট করব। তখন বাজেট দিলে, সেটা দেখে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। ওটার সঙ্গে এই বিষয়ের কোনো সম্পর্ক নেই।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে মো. আলমগীর বলেন, সিসি ক্যামেরা তো কেবল বললেই হবে না। অর্থের ব্যাপার যেমন আছে ম্যানেজমেন্টের ব্যাপারও আছে। চার লাখ সিসি ক্যামেরা মনিটর করবেন কীভাবে! সেটার একটা ওয়েআউট যদি বের করা যায় তাহলে অবশ্যই আমরা ব্যবহার করব।

সূত্র: বাংলানিউজ
আইএ/ ১৯ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button