ইউরোপ

যেভাবে বিধ্বস্ত হলো ইউক্রেনের হেলিকপ্টারটি

কিয়েভ, ১৮ জানুয়ারি – ইউক্রেনে বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ জনে। আহত হয়েছেন ২৯ জন; এদের মধ্যে ১৫ জনই শিশু। খবর আলজাজিরার।

বুধবার সকালে ইউক্রেনের উত্তরপূর্বের ব্রোভারি শহরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডেনিস মনাস্তিরস্কি, তার ডেপুটি ইয়েভেন এনিন এবং পররাষ্ট্র সচিব ইউরি লুবকোভিচ নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির পুলিশ প্রধান ক্লিমেঙ্কো।

কী করণে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হলো সেটি এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ওই এলাকাটিতে সকাল থেকেই বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যাচ্ছিল।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আসা বেশকিছু ভিডিওতে একটি পুড়তে থাকা ভবন এবং লোকজনকে চিৎকার করতে দেখা যাচ্ছে। তাৎক্ষণিকভাবে সেসব ফুটেজের সত্যতা যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যখন হেলিকপ্টারটি ব্রোভারির শহরতলিতে নেমে আসছিল এমন সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
দুর্ঘটনার সময় সেখানে অন্ধকার এবং কুয়াশাচ্ছন্ন ছিল। প্রাথমিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, হেলিকপ্টারটি একটি আবাসিক ভবনের কাছে বিধ্বস্ত হওয়ার আগে কিন্ডারগার্টেনে আঘাত করে।

কিন্ডারগার্টেনের কাছে আগুন লাগার পর শিশু ও কর্মীদের ওই ভবন থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

জাতীয় পুলিশ প্রধান ক্লাইমেঙ্কো ফেসবুকে লিখেছেন, বিধ্বস্ত হওয়া হেলিকপ্টারটি ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় জরুরি পরিষেবার জন্য ব্যবহার করা হতো।

গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে সেনা পাঠানো রাশিয়াও এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি। ওই এলাকায় সেসময় রাশিয়ার কোনো হামলার কথাও ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানাননি।

ইউক্রেন অঞ্চলের গভর্নর ওলেকসি কুলেবা টেলিগ্রামে লেখেন, হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের সময় নার্সারিতে শিশু এবং কয়েকজন কর্মী ছিলেন। তাদের সবাইকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে থাকা রয়টার্সের সাংবাদিকরা দেখেন, হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ভবনের কাছে ফয়েল পেপারে মোড়ানো কয়েকটি মরদেহ পড়ে আছে।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে একটি ভবন পুড়তে দেখা যায়, যেখানে লোকজন আর্তনাদ করছিল। তাৎক্ষণিকভাবে সে ফুটেজের সত্যতা যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/১৮ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button