জাতীয়

২৬ জানুয়ারি পাতাল রেল নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি – দেশের প্রথম পাতাল মেট্রোরেল ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট লাইন-১ (এমআরটি) এর নির্মাণকাজ আগামী ২৬ জানুয়ারি উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এরমধ্যে দিয়ে রাজধানী ঢাকায় দ্বিতীয় মেট্রোরেলের আনুষ্ঠানিক কর্মযজ্ঞ শুরু হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে লাইন-১ এর প্রকল্প পরিচালক আবুল কাশেম ভূঁঞা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পূর্বাচলে জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশের একটি খালি প্লটে লাইন-১ পাতাল রেলের শুভ সূচনা করবেন। তিনি একটি ফলক উন্মোচন করবেন। এরমধ্য দিয়ে লাইন -১ এর ডিপোর কাজ শুরু হবে।

তিনি বলেন, পিতলগঞ্জের ডিপো নির্মাণ এলাকায় জায়গার সংকুলান হবে না তাই এটি এখানেই করা হবে। প্রকল্প অনুযায়ী এমআরটি লাইন-১ বিমানবন্দর রূট এবং পূর্বাচল রূটে বিভক্ত থাকবে।

বিমানবন্দর-কমলাপুর রূটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে শুরু করে বিমানবন্দর টার্মিনাল ৩, খিলক্ষেত, যমুনা ফিউচার পার্ক, নতুন বাজার, উত্তর বাড্ডা, বাড্ডা, হাতিরঝিল, রামপুরা, মালিবাগ, রাজারবাগ হয়ে কমলাপুর যাবে।

সম্পূর্ণ সাড়ে ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এ রূট নির্মাণ হবে মাটির তল দিয়ে, থাকবে ১২টি স্টেশন। এ রূটের নতুন বাজার স্টেশনে হবে মেট্রো হাব। এখানে এমআরটি লাইন-৫ এর সঙ্গে এ রূটের আন্তঃসংযোগ থাকবে।

লাইন-১ এর পূর্বাচলগামী অংশটি নতুন বাজার থেকে যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধরা হয়ে পুলিশ অফিসার্স হাউজিং সোসাইটি, মাস্তুল, পূর্বাচল পশ্চিম, পূর্বাচল সেন্টার, পূর্বাচল সেক্টর-৭ হয়ে পূর্বাচল টার্মিনাল পর্যন্ত বিস্তৃত হবে । প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ পূর্বাচল রূটে বিমানবন্দর রূটের অন্তর্ভুক্ত নতুন বাজার ও যমুনা ফিউচার পার্কের আন্ডারগ্রাউন্ড স্টেশন দুটিসহ মোট স্টেশন থাকবে ৯ টি। এরমধ্যে বসুন্ধরা থেকে পূর্বাচল টার্মিনাল পর্যন্ত ৭টি স্টেশন হবে এলিভেটেড।

প্রসঙ্গত, এমআরটি-৬ এর একাংশ ২৮ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন। ২৯ ডিসেম্বর থেকে এ পথে শুরু হয় যাত্রী চলাচল।

সূত্র: বাংলানিউজ
আইএ/ ১৭ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button