ক্রিকেট

অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ অভিষেক বাংলাদেশের মেয়েদের

কেপটাউন, ১৪ জানুয়ারি – নারী অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের প্রথম আসরে দুর্দান্ত শুরু করলো বাংলাদেশ। আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে তারা।

দক্ষিণ আফ্রিকার বেনোনিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ১৩০ রান করে অস্ট্রেলিয়া। সেই লক্ষ্য ১৩ বল হাতে রেখেই পাড়ি দেয় বাংলাদেশের মেয়েরা।
পুরুষদের মতো নারীদের ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার দাপটের সঙ্গে পরিচিত নন এমন লোক খুব কমই আছেন। ওয়ানডেতে ৭ বার ও টি-টোয়েন্টিতে ৫ বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। কিন্তু অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি দলটির উঠতি ক্রিকেটার। ব্যাটিং-বোলিং কোনোটিতেই পাত্তা পায়নি বাংলাদেশের কাছে। প্রস্তুতি ম্যাচে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতকে হারানোর পর বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস ছিল তুঙ্গে। তা সঙ্গে করেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নেমেছিল দিশা বিশ্বাসের দল।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। ২২ রানের ভেতর তাদের উদ্বোধনী জুটিকে সাজঘরে পাঠান বাংলাদেশের অধিনায়ক দিশা। কিন্তু তৃতীয় উইকেট জুটিতে ক্লের মুর ও এলা হেওয়ার্ড মিলে ৭৬ রানের জুটি গড়লে সেই চাপ অনেকটাই সামাল দিয়ে উঠে। মুরকে ৫২ রানে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন রাবেয়া আক্তার। ১৮ তম ওভারে হেওয়ার্ড ( ৩৫) ও লুসি হ্যামিল্টনের উইকেট শিকার করে ম্যাচের নাটাই আবারও বাংলাদেশের হাতে রাখেন মারুফা আক্তার। কিন্তু শেষ দিকে অ্যামি স্মিথের ১৬ রান ও রাই মেকেনার ১২ রানের ক্যামিও ইনিংসে ৫ উইকেটে ১৩০ রানের সংগ্রহ পায় অস্ট্রেলিয়া।

জবাব দিতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই মিষ্টি সাহার উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তবে দিলারা আক্তারকে সঙ্গে নিয়ে সেই ধাক্কা সামাল দেন আফলা প্রত্যাশা। ৬৬ রানের জুটি গড়েন দুজনে। ১১ তম ওভারের ভেতর প্রত্যাশা ও দিলারা ফিরে গেলে আবারও চাপে পড়ে লাল সবুজ জার্সিধারীরা। প্রত্যাশা ২২ বলে ২ চার ও ২ ছক্কায় ২৪ রান এবং ৪২ বলে ৭ চারে ৪০ রানে আউট হন দিলারা। তীরে এসে তরী ডুবার ইতিহাস বাংলাদেশ ক্রিকেটে অহরহ। রিকোয়ার্ড রানরেট খুব বেশি না হলেও তা হাতের নাগালে ছিল না। তাই হারের শঙ্কা তো ছিল।

কিন্তু সুমাইয়া আক্তারের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ের কাছে তা নিমিষেই হাওয়ায় মিলে যায়। স্বর্ণাকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে অবিচ্ছিন্ন ৬১ রানের জুটি গড়েন ডানহাতি এই ব্যাটার। ২৭ বলে ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৪১ রানের হার না মানা এক ইনিংস খেলেন তিনি। অপরপ্রান্তে ১৫ বলে ১ চারে ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন স্বর্ণা। তার ব্যাট থেকে এসেছে জয়সূচক রানটি। রাইস ম্যাকেনার অফ স্টাম্পের বাইরে পিচ করা বলটিকে কাট করে দৌড়ে দুই রান নেন স্বর্ণা আক্তার। সঙ্গে সঙ্গে জয়োল্লাসে মাতে যুবা টাইগ্রেসরা।

এই জয়ে শেষ আটে ওঠার পথটা এগিয়ে রাখল বাংলাদেশ। আগামী পরশু নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের মুখোমুখি হবে তারা। গ্রুপে তাদের অপর প্রতিপক্ষ যুক্তরাষ্ট্র অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

সূত্র: বাংলানিউজ
এম ইউ/১৪ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button