ঢালিউড

রাজশাহীতে স্টার সিনেপ্লেক্সের উদ্বোধন করলেন তথ্যমন্ত্রী

রাজশাহী, ১৩ জানুয়ারি – ঢাকা ও চট্টগ্রামের পর এবার রাজশাহীতে চালু হলো স্টার সিনেপ্লেক্স। জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে নগরীর বুলনপাড়া আইবাঁধ সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কে সিনেপ্লেক্সটি উদ্বোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে স্টার সিনেপ্লেক্সের উদ্বোধন করেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল প্রমুখ।

রাজশাহীতে স্টার সিনেপ্লেক্স চালু করার বিষয়ে মাহবুব রহমান রুহেল বলেন, রাজশাহী দেশের ঐতিহ্যবাহী একটি শহর। এখানে প্রচুর সিনেমাপ্রেমী দর্শক রয়েছেন, যারা স্টার সিনেপ্লেক্সের মতো একটি মাল্টিপ্লেক্স প্রত্যাশা করেন। এছাড়া আমরা চেষ্টা করছি স্টার সিনেপ্লেক্সকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে, যাতে সারাদেশের মানুষ বিশ্বমানের সিনেমা হলে সিনেমা দেখার সুযোগ পায়। স্টার সিনেপ্লেক্সের শাখা চালুর মধ্য দিয়ে রাজশাহীতে হারিয়ে যাওয়া সেই বিনোদনের নতুন দিগন্ত আবারও উন্মোচিত হলো। দীর্ঘ চার বছরেরও অধিক সময় পর অপেক্ষার অবসান ঘটলো নগরবাসীর। ফলে রাজশাহীর সিনেমাপ্রেমীরা ব্যাপক উচ্ছ্বসিত। তাদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

নগরীর উপশহর এলাকার বাসিন্দা বিপুল হোসেন বলেন, বড় পর্দায় আবারও সিনেমা দেখতে পারব ভাবিনি। তবে বর্তমানে রাজশাহীতে বসে আমরা সিনেপ্লেক্সে ছবি দেখতে পারব- এমনটা ভাবতেই ভীষণ ভালো লাগছে। এক দিন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সিনেমা উপভোগ করতে যাব।

রাজশাহীতে আবারও বড় পর্দায় সিনেমা দেখার ব্যবস্থা হওয়ায় স্টার সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ এবং সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষক সুখন সরকার বলেন, গত কয়েক বছর ধরে আমাদের ভালো কোনো সিনেমা দেখতে হলে পার্শ্ববর্তী জেলা বগুড়া অথবা পাবনায় যেতে হতো। আমাদের সেই কষ্টটা এখন দূর হলো।

স্টার সিনেপ্লেক্সের মিডিয়া অ্যান্ড মার্কেটিং বিভাগের সিনিয়র ম্যানেজার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, রাজশাহীর বুলনপাড়া আই বাঁধ সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কের একটি হল নিয়ে নির্মিত হয়েছে এই সিনেপ্লেক্স। এর আসন সংখ্যা ১৭২টি। এখানে নান্দনিক পরিবেশ, সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়ে সাউন্ড সিস্টেম, জায়ান্ট স্ক্রিনসহ বিশ্বমানের সিনেমা হলের যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

আইএ/ ১৩ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button