দক্ষিণ এশিয়া

ভারতের সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শরদ যাদবের মৃত্যু

নয়াদিল্লি, ১৩ জানুয়ারি – ভারতের সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং দেশটির অন্যতম প্রধান সমাজতান্ত্রিক নেতা শরদ যাদব মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) ৭৫ বছর বয়সে মারা যান তিনি। ভারতীয় এই রাজনীতিক দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন এবং বৃহস্পতিবার দিল্লিতে নিজের বাড়িতে প্রয়াত হন তিনি।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিজের বাড়িতে অচেতন হওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে শরদ যাদব গুরুগ্রামের ফোর্টিস মেমোরিয়াল রিসার্চ ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়। তবে হাসপাতালটি এক বিবৃতিতে বলেছে, তাকে অচেতন এবং প্রতিক্রিয়াহীন অবস্থায় জরুরি ওয়ার্ডে আনা হয়েছিল।

সংবাদমাধ্যম বলছে, ছাত্র নেতা হিসাবে রাজনীতি শুরু করে শরদ যাদব নিজেকে কংগ্রেস বিরোধী শিবিরের সাথে যুক্ত করেছিলেন এবং পরে জেপি আন্দোলনে যুক্ত হন। নিজের জীবনের বেশিরভাগ সময়, তিনি বিরোধী দলের প্রধান মুখ ছিলেন।

শরদ যাদব অবশ্য কংগ্রেস এবং তার বড় রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী লালু যাদব উভয়ের সাথেই সমঝোতা করেছিলেন এবং বিহারে ২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনের পরে মহাজোট গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন।

এছাড়া ৯০ এর দশকের শেষের দিকে অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকার এবং ১৯৮৯ সালে ভিপি সিং সরকারের মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্বপালন করেছিলেন শরদ যাদব। তিনি তিনবার রাজ্যসভার সদস্য এবং সাতবার লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন।

বিহারের ক্ষমতাসীন জনতা দল ইউনাইটেডের প্রতিষ্ঠাতা-সদস্য মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার মহাজোট থেকে বেরিয়ে বিজেপির সাথে হাত মেলানোর পর তিনি পদত্যাগ করেন।

এদিকে শরদ যাদবের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘শ্রী শরদ যাদব জি-এর মৃত্যুতে আমি বেদনাগ্রস্ত। নিজের দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি সাংসদ এবং মন্ত্রী হিসাবে কাজ করেছেন। তিনি ড. লোহিয়ার আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। তার পরিবার ও ভক্তদের প্রতি সমবেদনা। ওম শান্তি।’

সূত্র: ঢাকা পোস্ট
আইএ/ ১৩ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button