পশ্চিমবঙ্গ

পশ্চিমবঙ্গে সাবেক মন্ত্রীর বাড়িতে টাকার পাহাড়

কলকাতা, ১২ জানুয়ারি – ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা জঙ্গিপুরের তৃণমূল বিধায়ক জাকির হোসেনের বাড়িতে ‘টাকার পাহাড়’-এর খোঁজ পেয়েছে দেশটির আয়কর দপ্তর। এ বার প্রকাশ্যে এল তৃণমূলের প্রাক্তন মন্ত্রীর বাড়ি থেকে পাওয়া বান্ডিল বান্ডিল সেই নোটের ছবি। গত বুধবার আয়কর বিভাগের কর্মকর্তারা হানা দিয়েছিলেন জাকিরের বাড়িতে।

আয়কর দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, জাকিরের বিড়ি কারখানা, গোডাউন এবং দপ্তর থেকে পাওয়া গেছে ১৫ কোটি টাকা। জাকির অবশ্য জানিয়েছেন, গত ২৩ বছর ধরে তিনি আয়কর দিয়ে আসছেন।

উদ্ধার হওয়া সেই ১৫ কোটি টাকার মধ্যে কেবল মাত্র একটি জায়গা থেকে মিলেছে ৯ কোটি টাকা। এ ছাড়া গোডাউনে হানা দিয়েও পাওয়া গেছে ২ কোটি টাকা। বুধবার দুপুরে ভারতের মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুরের বিধায়ক জাকিরের শিব বিড়ি, সামশেরগঞ্জের আনন্দ বিড়ি কারখানা এবং বিজলি বিড়ি কারখানায় হানা দেন আয়কর দপ্তরের কর্মকর্তারা। দফায় দফায় তল্লাশি চলে বিভিন্ন এলাকায়। বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে প্রকাশ্যে আসে বান্ডিল বান্ডিল সেই নোটের ছবি।

আয়কর দপ্তরের হানায় টাকা উদ্ধার নিয়ে জাকিরের বক্তব্য, ‘‘আমার কাছে প্রায় ৭ হাজার শ্রমিক কাজ করেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন রকমের ব্যবসা রয়েছে। কৃষিক্ষেত্রের যে ব্যবসার সঙ্গে আমি জড়িত সেখানে সমস্ত লেনদেন নগদে হয়। এর পাশাপাশি, শ্রমিকদের বেতনও নগদে দিতে হয়। সে কারণেই রাইস মিলে কিছু নগদ টাকা রাখা ছিল। ওই টাকার একটা অংশ যারা আমাকে ধান বিক্রি করেছিলেন তাদের প্রাপ্য।’’

তিনি আরও জানিয়েছেন, তার বাড়ি থেকে যত টাকা নগদ উদ্ধার হয়েছে তার অনেকটাই মহিলাদের জমানো টাকা। এর ফলে বহু শ্রমিক এবং কৃষকদের তিনি সময়মতো প্রাপ্য মেটাতে পারবেন না বলেও জানিয়েছেন। এ নিয়ে তিনি আইনি পথে এগোবেন বলেও জানিয়েছেন।

এর আগে নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ‘ঘনিষ্ঠ’ হিসাবে পরিচিত অভিনেত্রী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে হানা দিয়েছিলেন এনফোর্সেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর কর্মকর্তারা। দফায় দফায় তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার হয় কোটি কোটি টাকা। সেই টাকার ছবি প্রকাশ্যে আনে ইডি।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ১২ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button