জাতীয়

আ.লীগ নেতাকে নিয়ে প্রাণ গোপাল দত্তের বক্তব্য ভাইরাল, কী আছে ভিডিওতে?

ঢাকা, ১২ জানুয়ারি – কুমিল্লার চান্দিনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং পৌরসভার সাবেক মো. মফিজুল ইসলামের নিয়ে সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্তের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে মফিজুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে করা অভিযোগের কপি ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন চান্দিনার এই সংসদ সদস্য।

তবে এটি ‘সুপার এডিট’ বলে দাবি করেছে পৌর আওয়ামী লীগ। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে জরুরি সভা করে যারা এমন অপপ্রচার চালাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনের সংসদ সদস্য। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি।

দলীয় নেতা-কর্মীরা বলছেন, ৪ জানুয়ারি দুপুরে চান্দিনা পশ্চিম বাজারের হাজী ম্যানশনে সাবেক পৌর মেয়র মো. মফিজুল ইসলামের ব্যক্তিগত দপ্তরে যান সংসদ সদস্য প্রাণ গোপাল দত্ত। তিনি সাবেক মেয়রের চেয়ারে বসে ছিলেন। তখন তার পাশে দলীয় নেতা-কর্মীরা ছিলেন। ঘরোয়া আলোচনায় তিনি নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন।

ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে প্রাণ গোপাল দত্তকে বলতে শোনা যায়, ‘…এখানে ওপেন ক্লোজ বড় কথা না। বড় কথা হলো আজকে আমি এখানে এসেছি। বরং আরও বড় উপকার করেছি। এডিবির কাজের ব্যাপারে তদন্ত গিয়েছিল, তোমার (মফিজুল) বিরুদ্ধে। তোমার ঘরের লোক লিখছে। ঘরের লোক লিখছে। সেই জিনিসটা ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন থেকে। তো অসুবিধা কী আছে?’

এ বিষয়ে অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার বক্তব্য খণ্ডিত আকারে প্রকাশ করা হয়েছে।’

ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ার পর জরুরি বৈঠকে বসে চান্দিনা পৌর আওয়ামী লীগের সেতারা। সভায় সংসদ সদস্যের বক্তব্যকে ‘সুপার এডিট’ করে ভাইরাল করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা ভিডিওটি ভাইরাল করেন বলে অভিযোগ করেন অন্য অংশের নেতা-কর্মীরা।

সভায় মো. মফিজুল ইসলাম জানান, সংসদ সদস্য পৌর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভার বিষয়ে দিকনির্দেশনাসহ দ্রুত বর্ধিত সভা করার তাগিদ দেন। এ সময় বিভিন্ন কথাবার্তা হয়।

মফিজুল ইসলামের ভাষ্য, স্বাধীনতাবিরোধী চক্র সংসদ সদস্যের বক্তব্যকে সুপার এডিট করে ভিডিও ছড়িয়ে দেয়। এ ছাড়া এডিট করা ভিডিও এবং মিথ্যা তথ্য দিয়ে সাংবাদিকদের মাধ্যমে কয়েকটি টিভি ও পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে।

তিনি এ ঘটনাকে ‘চান্দিনা আওয়ামী লীগ ও অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্তের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার ঘৃণ্য চেষ্টা’ বলে অভিহিত করেন।

মফিজুল ইসলাম জানান, তিনি চান্দিনা পৌরসভার মেয়র থাকাকালে তার কাছের লোকজনও তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ নিয়ে সংসদ সদস্য প্রাণ গোপাল দত্তের কাছে গিয়েছিলেন।

‘সংসদ সদস্য ওই সব মিথ্যা অভিযোগ ছিঁড়ে ফেলেন’- বলেন এ বিষয়ে মফিজুল ইসলাম। তিনি আরও বলেন, ‘এই কথাটিকেও একটি কুচক্রী মহল দুর্নীতি দমন কমিশনের নাম জড়িয়ে ভিন্নভাবে উপস্থাপনের চেষ্টা করছে। আমি ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।’

সূত্র: ঢাকাটাইমস
আইএ/ ১২ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button