জাতীয়

ব্যাংকে ধারের টাকায় সুদহার বাড়ছে

ঢাকা, ১১ জানুয়ারি – দুই দিনের ব্যবধানে কলমানিতে সুদহার ১ শতাংশের বেশি বেড়েছে। হঠাৎ করে কলমানি থেকে বিভিন্ন ব্যাংকের টাকা ধার নেওয়ার প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় সুদের হারও বাড়ছে। খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গ্রাহক আস্থা কমে যাওয়ায় অনেক ব্যাংক তারল্যসংকটে ভুগছে। এছাড়া ডলার কেনার কারণেও কয়েকটি ব্যাংকের জরুরি নগদ টাকার প্রয়োজন হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার কলমানি বাজার থেকে প্রায় ৪ হাজার ৪১১ কোটি টাকা ধার নিয়েছে বিভিন্ন ব্যাংক। এর গড় সুদহার ছিল ৬ দশমিক ৭৭ শতাংশ। আগের দিন রোববার কলমানি বাজার থেকে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা ধার নিয়েছে বিভিন্ন ব্যাংক। গড় সুদহার ছিল ৬ দশমিক ৮০ শতাংশ। এক রাত বা এক দিনের ধারের জন্য এই সুদহার ধার্য করা হয়। বৃহস্পতিবার এ ধরনের ধারের গড় সুদহার ছিল ৫ দশমিক ৭৭। তবে যেসব ব্যাংক কলমানি থেকে দুই দিনের জন্য টাকা ধার করেছে, তাদের সুদ গুনতে হয়েছে আরও বেশি ৮ শতাংশ। এই হারে ১৫ কোটি টাকা ধার করেছে একটি ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যে আরও দেখা যায়, কলমানিতে বিভিন্ন মেয়াদে ধার দেওয়া হয়। ৯১ দিন, ৭ দিন, ৪ দিন, ২ দিন ও ১ দিনের মেয়াদে এই ধার দেওয়া-নেওয়া হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি টাকা ধার দেওয়া হয় এক দিনের মেয়াদে। রোববার কলমানি বাজার থেকে এক দিনের জন্য ৩ হাজার ৯৩১ কোটি টাকা ধার করে বিভিন্ন ব্যাংক। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫১০ কোটি ধার দেওয়া হয় সাত দিনের মেয়াদে, যার গড় সুদহার ছিল ৮ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। ১ জানুয়ারি থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত ছয় কার্যদিবসের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, কলমানি বাজার থেকে সবচেয়ে বেশি টাকা ধার নেওয়া হয় ২ জানুয়ারি। ওই দিন বিভিন্ন ব্যাংক ৬ হাজার ৬৭৮ কোটি টাকা ধার করেছিল, যার বড় অংশই ছিল এক দিনের মেয়াদে। সর্বশেষ গত রোববার কলমানি থেকে ধার দেওয়া হয় ৪ হাজার ৫৯৪ কোটি টাকা।

জানা গেছে, সাধারণত দিনের চাহিদা মেটাতে গিয়ে কোনো ব্যাংক তারল্যসংকটে পড়লে অন্য ব্যাংক থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ধার করে। এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকের টাকা ধার নেওয়ার এ ব্যবস্থা ‘কলমানি’ বাজার হিসাবে পরিচিত। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এ বাজার থেকে ১ থেকে ৭ দিন মেয়াদে সবচেয়ে বেশি টাকা ধার করা হয়।

সূত্র: যুগান্তর
আইএ/ ১১ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button