ক্রিকেট

বিতর্কে জড়ানোয় শাস্তির মুখে সাকিব

ঢাকা, ১০ জানুয়ারি – বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) নবম আসরে মাত্র দুটি ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়েছে ফরচুন বরিশালের। দুই ম্যাচেই বিতর্কে জড়ান দলটির অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। যে কারণে তাকে শাস্তি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে একটি সূত্র।

ওই সূত্রটি জানিয়েছে রংপুর রাইডাসের্র অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ও বরিশালের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ম্যাচফির ১৫ শতাংশ জরিমানা করেছেন ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ।

মঙ্গলবার বিপিএলের ম্যাচ শেষে নুরুল হাসান-সাকিব আল হাসান দুজনই নিজেদের ভুল স্বীকার করেছেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার বিপিএলের নবম আসরের ফরচুন বরিশাল-রংপুর রাইডার্সের মধ্যকার ম্যাচের শুরুতেই আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়ান সাকিব।

এদিন রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ১৫৯ রানের টার্গেট পায় বরিশাল। দলটির ওপেনার চতুরঙ্গা ডি সিলভা স্ট্রাইকে, রংপুরের বোলার রকিবুল হাসান বোলিং প্রান্তে। কিন্তু স্ট্রাইকে বাঁহাতি চতুরঙ্গাকে দেখে রংপুরের অধিনায়ক নুরুল হাসান বোলার পাল্টে বল তুলে দেন অফ স্পিনার শেখ মেহেদী হাসানের হাতে।

এ পরিবর্তন দেখে অন্যপ্রান্তে থাকা এনামুল হক স্ট্রাইকে আসেন। তখন রংপুর আরও একবার বোলার পাল্টায়। ডানহাতি এনামুলের বিপক্ষে বাঁহাতি স্পিনার রকিবুলকে বোলিং দিতে চাচ্ছিল রংপুর।

মাঝমাঠে যখন এই নাটক চলছিল, তখন ডাগআউট থেকে উঠে আসেন বরিশালের অধিনায়ক সাকিব। স্কয়ার লেগ আম্পায়ার গাজী সোহেলের দিকে তেড়ে আসেন তিনি।

নিয়ম অনুযায়ী সাকিবের মাঠে ঢোকার কথা নয়, কিন্তু তিনি নিয়ম ভেঙে মাঠে ঢুকেছেন, এরপর আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কেও জড়িয়েছেন। সেটি চলতে থাকে প্রায় পাঁচ মিনিট।

এরপর সাকিব মাঠ ছাড়লে বাঁহাতি চতুরঙ্গাকে বাঁহাতি রকিবুলকে দিয়েই বোলিং করানো হয়। আর সেই ওভারে রকিবুলের বলেই আউট হন চতুরঙ্গা।

সাকিবের মাঠে প্রবেশ করা প্রসঙ্গে বরিশালের ম্যানেজার সাজ্জাদ আহমেদ বলেন, নিয়ম অনুযায়ী কোন বোলার বল করবেন তা ঠিক হওয়ার পর ব্যাটসম্যানরা কে স্ট্রাইক নেবেন তা ঠিক হয়। এক্ষেত্রে শেখ মেহেদীকে বল করতে আসতে দেখে চতুরঙ্গা ডি সিলভার বদলে এনামুল হক বিজয়কে স্ট্রাইকে চাচ্ছিলেন সাকিব। কিন্তু আম্পায়ার সেটার অনুমতি দিতে রাজি হচ্ছিলেন না, এই নিয়ে কথা বলতে মাঠে প্রবেশ করেন তিনি।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/১০ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button