ইউরোপ

ইউক্রেনে দুই ব্রিটিশ নাগরিক নিখোঁজ

কিয়েভ, ১০ জানুয়ারি – ইউক্রেনের দোনেৎস্ক অঞ্চল থেকে দুই ব্রিটিশ নাগরিক নিখোঁজ হয়েছেন। স্থানীয় পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত করে। ইউক্রেনের পুলিশ বলছে, ৪৮ বছর বয়সী অ্যান্ড্রু বাগশো ও ২৮ বছর বয়সী ক্রিস্টোফার প্যারি স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করছিলেন সেখানে।

গত শুক্রবার সোলেদার শহরে যেতে দেখা গিয়েছিল তাদের। সেখানে তীব্র লড়াই চলছে রাশিয়া ও ইউক্রেন সেনাদের। এরপর থেকে তাদের সঙ্গে আর যোগাযোগ হয়নি।

দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তর বলেছে, ‘ইউক্রেনে নিখোঁজ হওয়া দুই ব্রিটিশ নাগরিকের পরিবারকে সহায়তা করছে তারা।’

প্যারি, কর্নওয়াল থেকে স্বেচ্ছাসেবীর কাজ করতে ইউক্রেনে যান এবং সম্প্রতি পূর্ব ডনবাস অঞ্চলে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করছিলেন। প্যারি তার অনলাইন পেজে যানবাহন মেরামত, জ্বালানি ও বেসামরিক লোকদের সরিয়ে নেওয়ার জন্য সরঞ্জাম কেনার অর্থ সংগ্রহের বিষয়ে লেখেন এবং শিশুদের ও পরিবারগুলোকে যুদ্ধের ফ্রন্ট লাইন থেকে পালাতে সহায়তা করার কথাও জানাতেন।

অপরদিকে, বাগশোর বাবা-মা নিউজিল্যান্ডের একটি গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছেন। সেখানেই ৪৮ বছর বয়সী এই ব্যক্তি বসবাস করেন।

বাখমুত শহরের পুলিশ বিভাগ বলছে, তারা শনিবার স্থানীয় সময় ৫টা ১৫ মিনিটে একজন নিখোঁজ ব্যক্তির রিপোর্ট পায় এবং যেকোনো তথ্যের জন্য আবেদন করে যা এই দুই ব্যক্তিকে সনাক্ত করতে সাহায্য করতে পারে।

এর আগে সোমবার, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানায়, তারা সোলেদারে তাদের বাহিনীকে শক্তিশালী করছে। বাখমুতের কাছে একটি ছোট শহর এটি। সেখানে রাশিয়ান ‘ভাড়াটে গোষ্ঠী’ ওয়াগনারের ক্রমাগত আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তারা।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মাস ধরে চলা যুদ্ধে ব্রিটিশ পররাষ্ট্র দপ্তর বিভিন্ন শহরে হামলার কারণে ইউক্রেন ভ্রমণের ব্যাপারে নাগরিকদের সতর্ক করে। দেশটি অবিলম্বে ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশনাও দেওয়া হয়।

গত বছর ধরে ইউক্রেনে ব্রিটিশদের নিখোঁজ বা বন্দী হওয়ার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। গত সেপ্টেম্বরে, রাশিয়া-সমর্থিত বাহিনীর হাতে বন্দী থাকা পাঁচ ব্রিটিশ নাগরিককে ছেড়ে দেওয়া হয়। সৌদি আরব জানায়, তারা রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে ১০ বন্দীর বিনিময়ে মধ্যস্থতা করেছে। সে সময় এইডেন অ্যাসলিন, জন হার্ডিং, ডিলান হিলি, অ্যান্ড্রু হিল এবং শন পিনারকে ধরার কয়েক মাস পর দেশে ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ১০ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button