পশ্চিমবঙ্গ

পশ্চিমবঙ্গের সাবেক রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী আর নেই

কলকাতা, ০৮ জানুয়ারি – না ফেরার দেশে চলে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের সাবেক রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। রবিবার ভোর ৫টার দিকে ভারতের উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। কেশরাীনাথ উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার স্পিকারও ছিলেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, মাসখানেক ধরে অসুস্থ ছিলেন কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। গত ৮ ডিসেম্বর তিনি পা পিছলে বাথরুমে পড়ে যান। ভেঙে যায় হাত। তারপর থেকেই শরীর ভালো যাচ্ছিল না এই বিজেপি নেতার। অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন। সেইসঙ্গে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রাও কমে যাচ্ছিল।

এই পরিস্থিতিতে কেশরীনাথকে গত ৩০ ডিসেম্বর উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের সিভিল লাইনসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। কয়েকদিন পর হাসপাতাল থেকে ছাড়াও পান।

কিন্তু ঠিকমতো খাওয়াদাওয়া করছিলেন না। ক্রমশ অসুস্থ হয়ে পড়ছিলেন। সেই অবস্থায় রবিবার ভোর ৫টার দিকে প্রয়াগরাজের বাসভবনে মারা যান কেশরীনাথ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। রবিবার সন্ধ্যায় প্রয়াগরাজে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।

পশ্চিমবঙ্গের সাবেক রাজ্যপালের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন ভা্রতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, ‘নিজের কাজ ও বিজ্ঞতার জন্য শ্রী কেশরীনাথ ত্রিপাঠীকে অত্যন্ত সম্মান করা হত। সাংবিধানিক বিষয়ে উনি অত্যন্ত দক্ষ ছিলেন। উত্তরপ্রদেশে বিজেপিকে শক্তিশালী করে তোলার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন এবং রাজ্যের উন্নয়নে কাজ করেছিলেন। তার প্রয়াণে শোকস্তব্ধ। তার পরিবার এবং অনুগামীদের সমবেদনা জানাচ্ছি। ওম শান্তি।’

১৯৩৪ সালের ১০ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেছিলেন কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। সাত ভাইবোনের মধ্যে সবথেকে ছোট ছিলেন। প্রাথমিকভাবে সেন্ট্রাল হিন্দু স্কুলে পড়াশোনা শুরু করেছিলেন। তারপর ১৯৪৯ সালে আগরওয়াল ইন্টার কলেজ থেকে মাধ্যমিক এবং ১৯৫৩ সালে এলাহাবাদ (বর্তমানে প্রয়াগরাজ) বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক স্তরের পড়াশোনা সম্পূর্ণ করেছিলেন।

এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই এলএলবি করেছিলেন কেশরনিাথ ত্রিপাঠী। এলাহাবাদ হাইকোর্টে প্র্যাকটিসও করতেন। তিনি মীরাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি.লিট পেয়েছিলেন। লিখেছিলেন বইও।

ছয়বার উত্তরপ্রদেশের বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। ১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত জনতা দলের শাসনকালে উত্তরপ্রদেশের ক্যাবিনেট মন্ত্রী ছিলেন। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার স্পিকারও ছিলেন কেশরীনাথ।

২০১৪ সালে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন প্রয়াত এই রাজনীতিক। পশ্চিমবঙ্গের ২০তম রাজ্যপাল ছিলেন তিনি। ২০১৯ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। সে সময় তিনি বিহার, মেঘালয় ও মিজোরামের রাজ্যপালেরও দায়িত্ব সামলেছিলেন।

সূত্র: ঢাকাটাইমস
আইএ/ ০৮ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button