দক্ষিণ এশিয়া

পাকিস্তানে হু হু করে বাড়ছে স্বর্ণের দাম, ভরি ১৮৮৬০০ রুপি

ইসলামাবাদ, ০৬ জানুয়ারি – পাকিস্তানে স্বর্ণের দাম হু হু করে বেড়েই চলেছে। বুধবার দেশটিতে ভালো মানের প্রতি ভরি সোনার দাম বেড়েছে ৯০০ রুপি।

পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বাজারে এক ভরি সোনার দাম এখন ১ লাখ ৮৮ হাজার ৬০০ রুপি!
প্রতি ১০ গ্রাম স্বর্ণের দরও সর্বকালের সর্বোচ্চ স্তরে গিয়ে ঠেকেছে। এপিএসজিজেএর তথ্যমতে, বুধবার অভ্যন্তরীণ বাজারে প্রতি গ্রামে ৭৭২ টাকা বেড়েছে। সে হিসেবে সেখানে ১০ গ্রাম সোনা বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার ৬৯৪ রুপিতে।

অল-পাকিস্তান সরাফা জেমস অ্যান্ড জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশনের (এপিএসজিজেএ) বরাতে এ তথ্য দিয়েছে পাকিস্তানের গণমাধ্যম জিও নিউজ।

সে হিসেবে দুবাইয়ের বাজারের তুলনায় দামের পার্থক্যে পাকিস্তানি সোনার দাম বিশ্ব বাজারে অনেক বেশি।

গত বছরের জুলাই থেকেই পাকিস্তানে সোনার দাম বেড়েই চলেছে। গত ২৬ জুলাই দেশটির অভ্যন্তরীণ বাজারে প্রতি ভরি বিক্রি হয় ১ লাখ ৪৮ হাজার ৩০০ রুপিতে। সে সময় ইতিহাস সৃষ্টি করে দেশটিতে প্রতি ভরি স্বর্ণের মূল্য ২ হাজার রুপি বাড়ে।

আর পাঁচ মাস পেরুতেই ভরির দাম বাড়ল ৪০ হাজার রুপির বেশি!

পাকিস্তানে রুপির অবমূল্যায়ন, মুদ্রাস্ফীতি এবং ডলারের ঘাটতির কারণে স্বর্ণের দাম এভাবে বাড়ছে বলে জানা গেছে।

বিশ্ব অর্থনীতিবিদদের দাবি, এভাবে সোনার দাম বাড়তে থাকলে পাকিস্তানি রুপির দাম মারাত্মক হারে পড়ে যেতে পারে। তখন শ্রীলঙ্কার মতো দেউলিয়া পরিস্থিতি হতে পারে পাকিস্তানের।

অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যেই গেল বছরে বন্যায় পাকিস্তানের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ ডুবে যায়। ফলে দেশটির বেশ কয়েকটি অঞ্চলে খাদ্য সংকটও দেখা দেয়। সেই সংকট থেকে পুরোপুরি উত্তোরণের আগেই সামনে এল সোনার দাম পড়ে যাওয়ার খবর।

এরইমধ্যে দেশটিতে কমেছে বিদেশি বিনিয়োগ। পাকিস্তানের স্টেট ব্যাংকের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, ২০২২ সালের জুলাই থেকে অক্টোবরের মধ্যে পাকিস্তানে বিদেশি বিনিয়োগ ৭২৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ৩৪৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, বহুপাক্ষিক এবং দ্বিপাক্ষিক ঋণদাতাদের ৬ থেকে ৮ বিলয়ন ডলারের ঋণ প্রবাহের কারণে পাকিস্তানে স্বর্ণের মূল্য ব্যাপক বৃদ্ধি পাবে।

সোনার দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়লেও রূপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে পাকিস্তানে। বুধবার প্রতি তোলা রূপার দাম ২১৫০ রুপিতে বিক্রি হয়েছে অভ্যন্তরীণ বাজারে। একইভাবে ১০ গ্রাম রূপার দাম ১৮৪৩ রুপিতে অপরিবর্তিত রয়েছে।

সূত্র: বাংলানিউজ
আইএ/ ০৬ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button