জাতীয়

সরকার পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে আসুন

ঢাকা, ০৫ জানুয়ারি – সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের পরিবর্তন যদি কেউ চান, নির্বাচনে আসুন। ১০ ডিসেম্বর, ৩০ ডিসেম্বর তারা যে হাঁক-ডাক দিয়েছে, শেষ পর্যন্ত ঘোড়া ডিম পাড়লো। এই সব হাঁক-ডাকে ঘোড়াও হাঁসে।

বৃহস্পতিবার তেজগাঁওয়ের সড়ক ভবনে সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির ৩০তম সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, অনেকে বলেছিল, দেশ সংঘাতের দিকে যাচ্ছে, কিন্তু শেষ পর্যন্ত কিছুই হলো না। সরকার পতন হবে, শেখ হাসিনা এগুলো ভয় পায় না। একমাত্র আল্লাহ ছাড়া শেখ হাসিনা কাউকে ভয় পায় না।

রংপুর সিটি করপোরেশন ও গাইবান্ধার নির্বাচনের উদহারণ দিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। সরকার কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ করবে না। সরকারের পরিবর্তন যদি কেউ চান, নির্বাচনে আসুন।

শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিএনপিকে স্বাগত জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ একটা রাজনৈতিক দল, যে দলের ঘরে গণতন্ত্র চর্চা করে, দেশে গণতন্ত্র বিকশিত করে। গণতন্ত্র এই দেশে স্বৈরশাসকদের হাতে পিষ্ট হয়েছে। আজকে শেখ হাসিনা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

অযথা সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণের বিরোধীতা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রয়োজন ছাড়া যে সব সরকারি কর্মকর্তা বিদেশে ভ্রমণ করতে যায়, এটা আমাদের ভাবায়। সরকারি চাকরীজীবীদের কোনো একটা কারণ দেখিয়ে বিদেশে যেতেই হবে। এই বিদেশ ভ্রমন কেন? অনেকে চিকিৎসার কথা বলে যায়, কেউ কেউ হয়তো আসলেই চিকিৎসা করতে যায়। সব বিষয়ে বাস্তবতা উপলব্ধি করতে হবে।

প্রকৌশলীদের সৎ থাকার পরামর্শ দিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশ সংকট থেকে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াবে। আমাদের রেমিটেন্স বাড়তে শুরু করেছে।

নিরাপদ সড়কের আইনের বিধিমালা প্রকাশিত হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, অনেক দিন আগে সড়ক পরিবহন বিলটি নিরাপদ সড়ক পরিবহনের এই বিলটি সংসদে পাশ হয়েছে। বিধি প্রণীত না হওয়ায় এই আইনটির বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া প্রলম্বিত হয়ে যায়। আজকে নতুন বছরের প্রত্যাশিত বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় সড়ক পরিবহন আইনের বিধিমালা প্রকাশিত হয়েছে এবং বিধিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে স্মার্ট সড়ক যোগাযোগ জরুরি হয়ে পড়েছে। কাজে-কর্মে প্রকৌশলীদেরও স্মার্ট হতে হবে। তবেই আমাদের স্মার্ট সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা করা সম্ভব।

সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির সভাপতি সৈয়দ মঈনুল হাসানের সভাপতিত্বে সম্মলনে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ইসহাক ও সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী অমিত কুমার চক্রবর্তী।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ০৫ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button