উত্তর আমেরিকা

যুক্তরাষ্ট্রে ফার্মেসিতে গর্ভপাত পিল বিক্রির অনুমতি

ওয়াশিংটন, ৪ জানুয়ারি – ফার্মেসিগুলোতে গর্ভপাতের বড়ি বিক্রির অনুমতি দিল যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)। এর ফলে প্রথমবারের মতো গর্ভপাতের ওষুধ বিক্রি করতে পারবে ফার্মেসিগুলো।

গত বছরের জুনে ‘রো অ্যান্ড ওয়েড’ মামলায় ঐতিহাসিক রায়ের মাধ্যমে ৫০ বছরের পুরোনো গর্ভপাতের সাংবিধানিক সুরক্ষাবিষয়ক আইন বাতিল করে দেন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিমকোর্ট।

এ প্রসঙ্গে সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি স্যামুয়েল আলিটোর নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ বলেন, ‘১৯৭৩ সালের মহিলাদের গর্ভপাতের অধিকার দেয়াটা ছিল বড় ভুল।’ ওই রায়ের পর যুক্তরাষ্ট্রের আরও অর্ধেক রাজ্য গর্ভপাত নিষিদ্ধ করার কথা ভাবছে। শুধু তাই নয়, গর্ভপাত নিরোধক ওষুধ বা বড়িও নিষিদ্ধ করতে চাইছে।

গর্ভপাতের আইনি অধিকার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিমকোর্টের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে দেশটিতে আন্দোলন চলছে। এমন পরিস্থিতিতে গর্ভপাতের বড়ি নিয়ে এফডিএ’র নির্দেশনা এলো।

মঙ্গলবার এফডিএ’র ওয়েবসাইটে এক নির্দেশনায় বলা হয়, মিফেপ্রিস্টোন আরইএমএস কর্মসূচির অধীনে মিফেপ্রেক্স ও এর অনুমোদিত জেনেরিকের বড়িগুলো ফার্মেসি বা সরকার অনুমোদিত ওষুধ বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলো বিক্রয় ও বিতরণ করতে পারবে।’
সর্বোচ্চ আদালতের ওই সিদ্ধান্তের কয়েক ঘণ্টা পরই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মার্কিন নারীদের কাছে গর্ভপাতের ওষুধ সহজলভ্য রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের আদেশ দেন। গর্ভধারণের ১০ সপ্তাহ পর্যন্ত কোনো ধরনের ঝুঁকি ছাড়াই এই ওষুধ খেয়ে গর্ভপাত ঘটাতে পারেন নারীরা।

টিভিতে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে বাইডেন বলেন, ‘আদালতের আজকের সিদ্ধান্তে যেসব নারীর ওপর প্রভাব পড়বে, তাদের অধিকার রক্ষায় আমি আমার ক্ষমতার সবটুকু ব্যবহার করব।’

যুক্তরাষ্ট্রের ১১ রাজ্যে গর্ভপাত নিয়ন্ত্রণ বা পুরোপুরি বাতিলে জোরালো দাবি রয়েছে। এসব রাজ্যের মধ্যে বেশির ভাগই রিপাবলিকানদের নেতৃত্বাধীন। অন্য রাজ্যগুলোও তাদের অনুসরণ করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: যুগান্তর
আইএ/ ০৪ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button