দক্ষিণ আমেরিকা

পেরুতে এক বছরে জন্ম নেওয়া ৭৩৮ শিশুর নাম ‘পেলে’

লিমা, ৩ জানুয়ারি – কোলন ক্যান্সারের সঙ্গে দীর্ঘ দিন লড়াই করে মারা গেছেন ফুটবল কিংবদন্তী পেলে। ব্রাজিলের এই মহাতারকার মৃত্যুতে পুরো পৃথিবী শোকাহত। তবে এরই মাঝে অসংখ্য রেকর্ডের মালিককে নিয়ে নতুন তথ্য পাওয়া গেল।

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে ২০২২ সালে জন্ম নেওয়া ৭৩৮ জন শিশুর নাম রাখা হয়েছে ফুটবলসম্রাটের নামে। ব্রাজিলের কিংবদন্তী ফুটবলারের মৃত্যুর পর দেশটির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন ও সিভিল স্ট্যাটাসের বরাত দিয়ে তথ্যটি জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএফপি।

পেরুর জাতীয় পরিচয় নিবন্ধনের তালিকা অনুযায়ী পেলে, কিং পেলে, এডসন আরান্তেস ও এডসন আরান্তেস দো নাসিমেন্তো নামে ২০২২ সালে জন্ম নেওয়া ৭৩৮ শিশুর নাম রাখা হয়েছে।

আশির দশকে বাংলাদেশেও এমনটা দেখা গিয়েছে। ব্রাজিলের ‘সাদা পেলে’ হিসেবে খ্যাত জিকোর নামে অনেক শিশুর নাম রাখা হয়েছিল। ১৯৮২ বিশ্বকাপের ফাইনালের নায়ক পাওলো রসির সঙ্গে মিলিয়ে ‘রসি’ নামও রাখা হয়েছে অনেক শিশুর।

এর আগে গত বছর সেপ্টেম্বের মারা যাওয়া ব্রিটেনের রানির নামেও কন্যাসন্তানের নাম রেখেছেন পেরুর মা–বাবারা। সে সংখ্যাও মোটেই কম নয়। ‘কুইন এলিজাবেথ’, ‘এলিজাবেথ দ্য সেকেন্ড’, ‘দ্বিতীয় (রোমান সংখ্যায়) এলিজাবেথ’—নামে মোট ৫৫১ জন কন্যাসন্তানের নাম রাখা হয়েছে।

কন্যাসন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে পেরুতে ‘রুবি’ নামটা সবচেয়ে জনপ্রিয়। সেখানে ২৪ হাজার ৯৮০ জন মেয়ের নাম রাখা হয়েছে রুবি। কলম্বিয়ার গায়িকা শাকিরার নামে রাখা হয়েছে ১ হাজার ৭৮৭ মেয়েশিশুর নাম।

যুক্তরাস্ট্রের কার্টুনিস্ট চার্লস অ্যাডামসের ফ্যান্টাসি ‘দ্য অ্যাডামস ফ্যামিলি’র সর্বকনিষ্ঠ কন্যা ওয়েডনেসডে দক্ষিণ আমেরিকার কিছু দেশে ‘মার্লিন’ নামে পরিচিত। পেরুতে এই নামে ২৫০ জন কন্যাসন্তানের নাম রাখা হয়েছে। কাতার বিশ্বকাপের জন্য অন্য একটি শিশুর নাম রাখা হয়েছে ‘কাতার’।

সূত্র: আমাদের সময়
আইএ/ ৩ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button