জাতীয়

ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে থাকবে ১৭-১৮ জনের ফোর্স

ঢাকা, ০২ জানুয়ারি – অনিয়মের কারণে স্থগিত হওয়া গাইবান্ধা-৫ আসনের (সাঘাটা ও ফুলছড়ি) উপ-নির্বাচনে এবার ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭ থেকে ১৮ জনের ফোর্স মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এক্ষেত্রে সাধারণ কেন্দ্রে ১৬ থেকে ১৭ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭ থেকে ১৮ জনের ফোর্স মোতায়েন থাকবে।

সোমবার (২ জানুয়ারি) ইসির যুগ্মসচিব এসএম আসাদুজ্জামান এ তথ্য জানান।

 

তিনি জানান, ভোটকেন্দ্র পাহারায় পুলিশ, অঙ্গীভূত আনসার ও গ্রাম পুলিশ ভোটের আগে-পরে চারদিনের জন্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়া পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের ছয়টি ভ্রাম্যমাণ ও চারটি স্ট্রাইকিং ফোর্স ভোটের মাঠে থাকবে। অন্যদিকে চার প্লাটুন বিজিবি ও র্যাবের নয়টি টিম আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করবে।

এছাড়াও নয়জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও দুজন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা ও সংক্ষিপ্ত বিচারকাজ সম্পন্ন করবেন।

আগামী বুধবার (৪ জানুয়ারি) গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মাহমুদ হাসান রিপন (আওয়ামী লীগ), এ এইচ এম গোলাম শহীদ রঞ্জু (জাতীয় পার্টি), অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম (বিকল্প ধারা), নাহিদুজ্জামান নিশাদ (স্বতন্ত্র) ও সৈয়দ মাহবুবুর রহমান (স্বতন্ত্র) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এই আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৩৯ হাজার ৭৪৩ জন। এর মধ্যে ফুলছড়ির সাতটি ইউনিয়নে ১ লাখ ১৪ হাজার ৬৭৬ জন এবং সাঘাটার ১০টি ইউনিয়নে ২ লাখ ২৫ হাজার ৭০ জন।

গত ১২ অক্টোবর এ আসনের উপ-নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের কারণে ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয় ইসি। পরে ৪ জানুয়ারি ভোটের নতুন তারিখ নির্ধারণ করে সংস্থাটি।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ০২ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button