জাতীয়

মেট্রোরেল চলাচলে বিঘ্ন ঘটাতে পারে ফানুস, ঘুড়ি

ঢাকা, ০১ জানুয়ারি – ঢাকার মেট্রোরেল পুরোপুরি বিদ্যুৎ–চালিত। ঝুলন্ত তারের সঙ্গে ট্রেনের সংযোগের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পরিবহন হয়। এই ব্যবস্থায় ফানুস, ঘুড়ি, কাপড় কিংবা এ–জাতীয় বস্তু আটকে গেলে বিদ্যুৎ পরিবহন বাধাগ্রস্ত হয়, যা থেকে মেট্রোরেল চলাচলে বিঘ্ন ঘটাতে পারে।

আজ সকালে দেশের প্রথম মেট্রোরেলের চলাচল আটকে দিয়েছিল খ্রিষ্টীয় বর্ষবরণে শনিবার দিবাগত রাতে ওড়ানো ফানুস।

ঢাকায় মেট্রোরেল নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। সংস্থাটির সূত্র বলছে, মেট্রোরেলের লাইনের দুই পাশে খুঁটি দিয়ে তার টানিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা করা হয়েছে, যাকে বলা হয় ক্যাটিনারি সিস্টেম। এই তার থেকে ট্রেনে বিদ্যুৎ নেওয়া হয় প্যান্টুগ্রাফ নামের একটি যন্ত্রের মাধ্যমে। প্রতিটি ট্রেনে চারটি করে প্যান্টুগ্রাফ রয়েছে।

রাজধানীতে গত রাতে ওড়ানো কয়েক শ ফানুস মেট্রোরেল লাইনের তারে, খুঁটিতে আটকে ছিল। মেট্রোরেলের বিদ্যুৎব্যবস্থা দেখভালের দায়িত্বে নিয়োজিত সূত্র বলছে, কপারের মধ্যে প্লাস্টিক কিংবা কাপড়জাতীয় বস্তু আটকে থাকলে তা দিয়ে বিদ্যুৎ পরিবাহিত হওয়ার সময় স্ফুলিঙ্গ (স্পার্ক) হতে পারে। এতে দুর্ঘটনা না হলেও পুরো ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

মেট্রোরেলে বিদ্যুতের লাইনে আটকে থাকা বস্তুর মধ্যে আশপাশের বাসা–বাড়ি থেকে উড়ে আসা কাপড়ও ছিল

ডিএমটিসিএল সূত্র জানিয়েছে, সকালে উত্তরা উত্তর স্টেশন থেকে একটি ট্রেন ছেড়ে আসার পর ফানুস পড়ে থাকার বিষয়টি নজরে আসে। রেললাইন থেকে উঁচু তারে আটকে থাকা কোনো কিছু সরানোর জন্য একধরনের স্বয়ংক্রিয় মই উত্তরায় আছে। এই মইবাহী যান রেললাইন ধরে চালানো যায়। যেহেতু একটি ট্রেন উত্তরা থেকে ছেড়ে এসে লাইনে দাঁড়ানো ছিল। সে জন্য মইটি পুরোপুরি কাজে লাগানো যায়নি। কর্মীরা বড় লাঠির সাহায্যে ফানুসগুলো নামিয়েছেন। এ জন্য সময় লেগেছে বেশি।

ডিএমটিসিএলের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ফানুস ছাড়াও মেট্রোরেল লাইনে আশপাশের বাড়ির ছাদ থেকে বাতাসে উড়ে আসা কাপড়ও পাওয়া গেছে। ছাদে কাপড় শুকাতে দিলে শক্ত করে ক্লিপ দিয়ে আটকে দেওয়া দরকার। তিনি বলেন, কেউ কেউ আতশবাজিও ছুড়ে মেরেছে রেললাইনের দিকে। এ জন্য শুরুতে পুরো বিদ্যুৎব্যবস্থা বন্ধ করা হয়েছে। এরপর লাইন, তার এবং অন্যান্য স্থাপনা থেকে ফানুস ও অন্যান্য বস্তু সরানো হয়েছে। ফানুসের সংখ্যা না বলতে পারলেও ওই কর্মকর্তা জানান, কয়েক বস্তা ফানুস ও অন্যান্য বস্তু অপসারণ করা হয়েছে।

বৈদ্যুতিক লাইনে ফানুস আটকে থাকায় মেট্রোরেল চলাচল আজ রোববার সকালে দুই ঘণ্টার বেশি সময় বন্ধ ছিল। ফানুস সরানোর পর সকাল ১০টা ১৫ মিনিটের দিকে রেল চলাচল শুরু হয়।

ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক বলেন, পুলিশ ফানুস না ওড়াতে আগের দিন মাইকিং করেছে। তিনি নিজে টেলিভিশনে সাক্ষাৎকারে মেট্রোরেলের পাশে ফানুস ও ঘুড়ি না ওড়াতে অনুরোধ জানিয়েছেন। ঢাকাবাসীকে এগুলো মানতে হবে। তিনি বলেন, মূল্যবান সম্পদের ক্ষতি হলে তো দেশেরই ক্ষতি। এ বিষয়টি ঢাকাবাসীকে একটু বিবেচনায় নিতে হবে।

এম এ এন সিদ্দিক বলেন, দিল্লিতে মেট্রোরেলের লাইনসংখ্যা বেশি। তাই সেখানে ফানুস, এমনকি ঘুড়িও ওড়াতে দেওয়া হয় না।

মেট্রোরেলের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে আশপাশের বাড়ির ছাদে কাপড় শুকাতে দিলে শক্ত করে ক্লিপ দিয়ে আটকে দিতে হবে

বুধবার উদ্বোধনের পর গত বৃহস্পতিবার সাধারণ যাত্রীদের নিয়ে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পথে মেট্রোরেল চলাচল করছে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চার ঘণ্টা চলাচল করছে ট্রেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, ঢাকার মানুষকে মেট্রোরেলের ব্যাপারে অভ্যস্ত করতেই সীমিত আকারে চলাচলের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী ২৬ মার্চ থেকে উত্তরা-আগারগাঁও পথে পুরোদমে যাত্রী নিয়ে চলাচল করবে মেট্রোরেল।

সূত্র: প্রথম আলো
এম ইউ/০১ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button