রূপচর্চা

বডি লোশন কি মুখে মাখা যায়?

শীতের দিনে কমবেশি সবাই বডি লোশন ব্যবহার করেন । ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখতে বডি লোশন বেশ উপকারী। অনেকে আবার বডি লোশন মুখেও মাখেন। তবে বডি লোশন কী মুখে মাখা ঠিক তা নিয়ে কথা বলেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার পাসাডেনার বোর্ড প্রত্যয়িত ত্বক বিশেষজ্ঞ আইভি লি বলেন, সাধারণত, বডি লোশন মুখে ব্যবহার করা যায়। তবে মুখের ত্বকে কোনো বিশেষ সমস্যা যেমন- ব্রন প্রবণতা, একজিমা ইত্যাদি থাকলে এই লোশন লাগালে জ্বালাপোড়া, অ্যালার্জি ইত্যাদি দেখা দিতে পারে।

ওয়েলঅ্যান্ডগুড ডটকম’য়ে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে তিনি আরও জানিয়েছেন, এই ধরনের সমস্যার কারণ হল ‘ফেইস লোশন’বা ক্রিম দুটাই নন-কমেডোজেনিক। এর মানে হল এতে লোমকূপ আবদ্ধ হয় না এবং মুখের ত্বক সংবেদনশীল হওয়ার পরেও ব্রণ, জ্বলুনি বা ‘হাইপো-অ্যালার্জেনিক’ অর্থাৎ সাধারণ অ্যালার্জি দেখা দেয় না।

ত্বক বিশেষজ্ঞ আইভি লি’র মতে, মুখে ব্রণ, একজিমা, অতিরিক্ত সংবেদনশীলতা ইত্যাদি না থাকলে বডি লোশন মুখেও ব্যবহার করা যায়।

ডা. লি বলেন, এক্সফলিয়েটিং অ্যাসিড যেমন- ল্যাক্টিক অ্যাসিড, স্যালিসাইলিক অ্যাসিড বা গ্লাইকোলিক অ্যাসিড নিরাপদে মুখের ত্বকে ব্যবহার করা যায়। যদিও অনেক বডি লোশনে মুখের লোশনের তুলনায় উচ্চ মাত্রায় এক্সফলিয়েটিং অ্যাসিড থাকে। তাই এগুলো কতটা শক্তিশালী তা দেখে ব্যবহার করা ভালো।

বিশেষজ্ঞদের মতে, বডি লোশন মুখে মাখতে চাইলে এর ঘনত্বের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। এ ব্যাপারে মায়ামির বিলাসবহুল প্রসাধনী ‘অ্যালিক্সিস লরেন কালেকটিভ’য়ের সহকারী প্রতিষ্ঠাতা মাইকেল রেন্ডার ভাষায়, ঘনত্ব মুখ ও দেহের লোশনে বিপুল পার্থক্য সৃষ্টি করে। তাই মুখের ত্বকে ঘন ক্রিম মানানসই না হলে ঘন লোশন ব্যবহার করাও ঠিক হবে না।

মনে রাখা জরুরি যে, নিজে যেটা তৈরি করবেন সেটাই আপনার ত্বক পরিচর্যার রুটিন। নিয়মিত বহুমুখি লোশন বা ফেইস ক্রিম ছাড়াই বডি লোশন যে কোনোটাই ব্যবহার করা যায়। শুধু মুখে ব্রণ, একজিমা বা সংবেদনশীলতার অসুবিধা থাকলে বডি লোশন মুখে ব্যবহার করা ঠিক হবে না।

এম ইউ

Back to top button