জাতীয়

আইনের শাসন আমাদের ধরে রাখতে হবে

ঢাকা, ৩০ ডিসেম্বর – বঙ্গবন্ধু হত্যা, জেল হত্যা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছেন মন্তব্য করে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘আমাদের এখন আইনের শাসন ধরে রাখতে হবে।’

শুক্রবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদ প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ আইন সমিতির ৩৬তম বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পরে আমরা স্বাধীনতার চেতনা ধুলিসাৎ করার চেষ্টা দেখেছি। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে কোনো এজাহার দায়ের করা হয়নি। অথচ কোনো হত্যাকাণ্ড অথবা অপরাধ হলে এজাহার হয়। কিন্তু বঙ্গবন্ধু হত্যার সময় ১৮ জনকে হত্যা করা হলেও কোনো মামলা হয়নি। এই যে আইনের শাসন ধুলিস্যাৎ করার অপচেষ্টা, এর বিরুদ্ধে লড়াই করে আমরা এ জায়গায় এসেছি। আমাদের এটি ধরে রাখতে হবে। স্বাধীন বাংলাদেশের চেতনা দলমত নির্বিশেষে ধরে রাখতে হবে।’

আইন সমিতির সদস্যদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আইনের শাসন ধরে রাখতে অগ্রগামী হচ্ছেন আপনারা। আপনাদের ওপর আমার অনেক আস্থা। আপনাদের মাধ্যমে আইনের শাসন আরও দৃঢ় হবে।’

এ দিন সকালে বাংলাদেশ আইন সমিতির ৩৬তম বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। সভাপ্রধান ছিলেন বাংলাদেশ আইন সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ কে এম আফজাল উল-মুনীর। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সীমা জামান, সম্মেলনের আহ্বায়ক ও ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার ও আইন সমিতির সাধারণ সম্পাদক কেশব রায় চৌধুরী।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, এই সম্মেলন বাংলাদেশ আইন সমিতির গণতান্ত্রিক রীতিনীতির মৌলিক দর্শনের একটি সুন্দর উদাহরণ। দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ সংরক্ষণে সমিতির সদস্যরা পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনা, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে দেশের অপ্রতিরোধ্য উন্নয়নের এই ধারাকে আরও বেগবান করতে উপাচার্য বাংলাদেশ আইন সমিতির সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ আইন সমিতির সদস্য হাসিবুল হক নতুন ও মেশকাত শুকরানার সঞ্চালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সমিতির সদস্য আব্দুল্লাহ আল ফারাবীর ব্যান্ড ‘দূর্গ’, শিল্পী কিশোর দাশ এবং শাকিলা সাকী সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

সূত্র: সমকাল
আইএ/ ৩০ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button