দক্ষিণ এশিয়া

উজবেকিস্তানে শিশুমৃত্যু, উত্তরপ্রদেশে সিরাপ উৎপাদনে নিষেধাজ্ঞা

নয়াদিল্লি, ৩০ ডিসেম্বর – আফ্রিকার গাম্বিয়ার পর এশিয়ার উজবেকিস্তান অভিযোগ করে, ভারতে তৈরি সর্দি-কাশির সিরাপ খেয়ে দেশটির ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ অভিযোগের পর উত্তরপ্রদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ম্যারিয়ন বায়োটেক প্রাইভেট লিমিটেডকে সর্দি-কাশির সিরাপ ‘ডক-১ ম্যাক্স’ উৎপাদন বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার।

জানা গেছে, নয়ডার ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থাকে প্রোপিলিন গ্লাইকলযুক্ত অন্য ওষুধগুলোর উৎপাদনও বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে জানানো হয়, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সংস্থা ‘সেন্ট্রাল ড্রাগ স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন’ (সিডিএসসিও) এবং সে রাজ্যের ‘ড্রাগ কন্ট্রোলিং অ্যান্ড লাইসেন্সিং অথরিটি’-র যৌথ বিশেষজ্ঞ তদন্তকারী দল অভিযোগের সত্যতা যাচাই করার পর সংশ্লিষ্ট ওষুধ উৎপাদনের ছাড়পত্র বহাল রাখার বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে। বৃহস্পতিবার তদন্তকারী দলের সদস্যরা নয়ডার ওই কারখানা ঘুরে দেখেন। তারা কিছু নমুনাও সংগ্রহ করেন।

উজবেকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) জানায়, ভারতীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ম্যারিয়ন বায়োটেক প্রাইভেট লিমিটেডের তৈরি কাশির সিরাপ খেয়ে এখন পর্যন্ত ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

২০১২ সালে উজবেকিস্তানে নাম নথিভুক্ত করায় ম্যারিয়ন বায়োটেক। তাদের সরবরাহ করা সর্দি-কাশির সিরাপ পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে উজবেকিস্তান সরকার।

এর আগে গাম্বিয়ায় সর্দি-কাশির সিরাপে অস্বাভাবিক মাত্রায় ডাইথিলিন গ্লাইকল এবং এথিলিন গ্লাইকলের উপস্থিতির কারণে কিডনি বিকল হয়ে প্রায় ৭০ জন শিশুর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ ওঠে।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ৩০ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button