ক্রিকেট

ইংল্যান্ড সিরিজের আগেই বিদায় ডোমিঙ্গোর, নতুন কোচ কে?

ঢাকা, ২৭ ডিসেম্বর – আগামী মার্চেই ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনটি করে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। গুঞ্জন শুরু হয়েছে, ইংল্যান্ড সিরিজের আগেই প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে বিদায় দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এ ব্যাপারে বিসিবি নীতিগত সিদ্ধান্তও নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

বিসিবির সিদ্ধান্তে আকস্মিক কোনো রদবদল না ঘটলে ডোমিঙ্গোর বাংলাদেশ অধ্যায় আপাতত শেষই বলা যায়। কারণ, ভারত সিরিজ শেষে দেশে ফিরে যাওয়া রাসেল ডোমিঙ্গোকে দ্রুতই চাকরিচ্যুতির নোটিশ পাঠিয়ে দেয়া হবে। বিসিবি যে তাকে বাদ দিতে চাচ্ছে, সে বিষয়টা এরই মধ্যে নাকি জেনে গেছেন তিনি।

ডোমিঙ্গোর সঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের চুক্তির মেয়াদ ২০২৩ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। এর মধ্যে তাকে চাকরিচ্যুত করতে হলে তিনমাস আগে নোটিশ দিতে হবে। এখনই যদি অব্যাহতি দেয়া হয়, তাহলে তিনমাসের বেতন দিয়ে দিতে হবে। আয়কর বাদ দিয়ে ডমিঙ্গোর বর্তমান বেতন মাসে প্রায় ১৮ হাজার ডলার।

কেন ডোমিঙ্গোকে পরিবর্তনের চিন্তা বিসিবির? এ প্রশ্নের জবাবে বিসিবি নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে কয়েকটি মিডিয়া জানাচ্ছে, জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে তিনি না পারছেন যথেষ্ট কর্তৃত্ব দেখাতে, না পারছেন খেলোয়াড়দের অনুপ্রাণিত করতে- এমন পর্যবেক্ষণ থেকেই ডমিঙ্গোকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত। তা ছাড়া সিরিজ বা টুর্নামেন্ট না হলে শুধু অনুশীলনের জন্য তার বাংলাদেশে থাকতে না চাওয়াও এর একটা কারণ।

আগেরদিন ধানমন্ডিতে একটি বিজয় দিবস ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ করতে গিয়ে মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। সেখানে যদিও তিনি কোচ ডোমিঙ্গোর পারফরম্যান্সে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তবে তিনি কোচিং প্যানেলে পরিবর্তনের আভাসও দিয়েছেন। বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমরা একটা পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছি। স্বল্পমেয়াদি নয়, দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছি। তিন-চার বছরের পরিকল্পনা। এটার জন্য যদি পরিবর্তন দরকার হয়, তাহলে পরিবর্তন আসবে।’

নতুন কোচের ঘোষণাও দ্রুততম সময়ের মধ্যে দিয়ে দেবে বিসিবি। জানা গেছে, আগামী মার্চে অনুষ্ঠিতব্য ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টির হোম সিরিজের আগে বা সিরিজের মধ্যেই নতুন কোচের নাম ঘোষণা করতে পারে বিসিবি।

নতুন কোচ কে? সে সম্পর্কে এখনও স্পষ্ট কিছু জানা যায়নি। তবে নতুন কোচের সঙ্গেও বিসিবির কথাবার্তা অনেকটা পাকা হয়ে গেছে বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ দল ইংল্যান্ড সিরিজটা নতুন কোচের অধীনে খেলবে কি না, সেটিও নিশ্চিত নয়।

ইংল্যান্ড সিরিজের আগে নতুন কোচ পাওয়া না গেলে বিসিবির চিন্তা, সর্বশেষ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজরের দায়িত্ব পালন করা শ্রীধরন শ্রীরামকে দিয়ে সিরিজটি চালিয়ে নেওয়া হবে। সঙ্গে অন্য কোচরা তো থাকবেনই। শ্রীরামের শর্ত অনুযায়ী আইপিএলের সময়টুকু বাদ দিয়ে তাঁকে টি–টোয়েন্টি দলের কোচের দায়িত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড। সঙ্গে ইংল্যান্ড সিরিজে ওয়ানডে দলের কোচ থাকারও প্রস্তাব দেওয়া হতে পারে এই ভারতীয়কে।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের এখনও নির্ধারণ হয়নি। তবে ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে ইংল্যান্ড দলের ঢাকায় আসার কথা রয়েছে। সিরিজ শেষ হয়ে যাবে মার্চ মাসের মধ্যেই। আর আইপিএল শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ১ এপ্রিল। সুতরাং, ইংল্যান্ড সিরিজের ওয়ানডে, টি–টোয়েন্টি দুই দলেরই দায়িত্ব নিতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয় শ্রীরামের। তারপরও তিনি ওয়ানডে দলের দায়িত্ব নিতে না চাইলে জেমি সিডন্স-অ্যালান ডোনাল্ডদের দিয়েই কাজ চালানো হবে।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২৭ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button