এশিয়া

নারীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় নিষিদ্ধ হচ্ছে আফগানিস্তানে

কাবুল, ২১ ডিসেম্বর – আফগানিস্তানে নারীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে তালেবান সরকার। দেশটির উচ্চশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

মন্ত্রণালয়ের ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে। অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত বছর আশরাফ গাণির সরকারকে সরিয়ে ক্ষমতায় বসে তালেবান। তখন থেকেই নারীদের শিক্ষার বিষয়ে নানা বিধিনিষেধ আরোপ করে তারা। একই বছর বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী-পুরুষ শিক্ষার্থীদের আলাদা শ্রেণিকক্ষে বসার নিয়ম চালু করে। এমনকি পশু চিকিৎসা, ইঞ্জিনিয়ারিং, অর্থনীতি, কৃষি এবং সাংবাদিকতায় অধ্যায়নের বিষয়ে নারীদের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। তালেবানের এমন সিদ্ধান্তে কঠোর সমালোচনা হয় বিশ্বজুড়ে।

এর উপরে নতুন করে নিষেধাজ্ঞার এই ঘোষণা এলো।

সবশেষ নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়ায় দেশটির বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী বিবিসিকে বলেছেন, নারী ও তাদের ক্ষমতাকে ভয় পায় তালেবান। আমি কীভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারি? আমি বিশ্বাস করি, আমি পড়াশোনা করে আমার ভবিষ্যৎ পরিবর্তন করতে পারতাম। কিন্তু তারা তা ধ্বংস করে দিয়েছে।

গত নভেম্বরে দেশটিতে নারীদের পার্কে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়। সেসব জায়গায় ইসলামিক আইন মানা হচ্ছে না বলে জানায় তালেবান।

তালেবানের এসব কর্মকাণ্ডের ফলে তারা আন্তর্জাতিকভাবে আরও একঘরে হয়ে পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২১ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button