এশিয়া

থাইল্যান্ডের ডুবে যাওয়া যুদ্ধজাহাজের ৬ নাবিকের মৃতদেহ উদ্ধার

ব্যাংকক, ২১ ডিসেম্বর – সমুদ্রে ডুবে যাওয়া থাইল্যান্ডের যুদ্ধজাহাজের ৬ নাবিকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে দেশটির নৌবাহিনীর সদস্যরা। মঙ্গলবার (২০ ডিসেম্বর) থাইল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূলে ডুবে যাওয়া ওই যুদ্ধজাহাজের চার নাবিকের মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে দেশটির নৌবাহিনী প্রধান জানিয়েছেন। খবর এএফপি’র।

রয়্যাল থাই নেভির কমান্ডার-ইন-চিফ চোয়েংচাই চমচোয়েংপেট ব্যাংককে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৬ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

গত রোববার (১৮ ডিসেম্বর) রাতে ঝড়ের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর ১০৫ জন নাবিক নিয়ে জাহাজটি ডুবে যায়। দেশটির নৌবাহিনী বলেছে, জাহাজের ৭৭ নাবিককে উদ্ধার করা হলেও এখনও নিখোঁজ রয়েছেন আরও অন্তত ২৪ জন।

গত দু’দিন ধরে থাইল্যান্ডের উপকূলের ৫০ বর্গ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে দেশটির নৌবাহিনী এবং বিমান বাহিনী নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছে। এই উদ্ধার কাজে দেশটির নৌবাহিনীর ৪টি জাহাজে শত শত কর্মকর্তার পাশাপাশি কয়েকটি হেলিকপ্টারও মোতায়েন করা হয়েছে।

 

দেশটির নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল চোনলাথিস নাভানুগ্রহ বলেন, ‘জাহাজটি ডুবে যাওয়ার ৪১ ঘণ্টা পর আমরা জীবিত একজনকে উদ্ধার করেছি। তাই আমাদের বিশ্বাস, সেখানে এখনও জীবিত মানুষ আছেন। আমরা উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাব।’

এর আগে নৌবাহিনীর এক কমান্ডার বলেছিলেন, সাগরে জীবিত কাউকে খুঁজে বের করার জন্য তল্লাশি দলের কাছে মাত্র দুই দিনের সময় রয়েছে। এরপর কাউকে জীবিত উদ্ধারের আশা একেবারে ক্ষীণ।

মার্কিন নেভাল ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় একটি কোম্পানির বানানো যুদ্ধ জাহাজ এইচ.টি.এম.এস সুখোথাই ১৯৮৭ সালে থাই নৌবাহিনীতে যুক্ত হয়।

এদিকে ডুবে যাওয়া এইচ.টি.এম.এস সুখোথাই নামে থাই যুদ্ধজাহাজটি উদ্ধারে সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে দেশটির নৌবাহিনী। এ ছাড়াও দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও জানানো হয়।

সূত্র: সময় টিভি
আইএ/ ২১ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button