ফুটবল

আর্জেন্টিনার পক্ষে বাজি ধরেও ১০ কোটি টাকা হার

অটোয়া, ১৯ ডিসেম্বর – ফুটবল ম্যাচে পক্ষে-বিপক্ষে বড় অঙ্কের বাজি ধরাটা যেন অভ্যাস বানিয়ে ফেলেছেন কানাডার বিখ্যাত র‍্যাপার ড্রেক। স্বভাব অনুযায়ী এবার বিশ্বকাপের ফাইনালে বাজি ধরেন আর্জেন্টিনার পক্ষে। বাজি ধরার পর তিনি আগে থেকেই বলে দেন, এবারের বিশ্বকাপ জিতবেন লিওনেল মেসিরা। আর্জেন্টিনার পক্ষে তিনি বাজি ধরেন এক মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা।

আর্জেন্টিনার পাঁড় ভক্ত ড্রেক বিশ্বকাপের শুরু থেকেই আলবিসেলেস্তেদের সমর্থন দিয়ে আসছেন। এবার আবেগের বশেই হয়তো লিওনেল মেসিদের বিশ্বকাপ জয়ের পক্ষে এত বড় অঙ্কের বাজি ধরেছেন। আর্জেন্টিনা শেষ পর্যন্ত বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। কিন্তু তারপরও কেন ১০ কোটি টাকা হারলেন এই র‍্যাপার?

 

ড্রেক হেরেছেন বাজির শর্তের কারণেই। তাঁর বাজিটা ছিল, বিশ্বকাপ ফাইনালে ফ্রান্সকে আর্জেন্টিনা হারাবে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের মধ্যেই। কিন্তু আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জিতেছে টাইব্রেকারে। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় মিলিয়ে খেলা ৩-৩ গোলে ড্র হওয়ার পর গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজের কল্যাণে পেনাল্টি শুট আউটে আর্জেন্টিনা ৩৬ বছর পর জিতে নেয় বিশ্বকাপ। আর এতেই কপাল পোড়ে ড্রেকের।

অথচ ড্রেক বাজি জয়ের পথে খুব ভালোমতোই ছিলেন। লিওনেল মেসির পেনাল্টি আর আনহেল দি মারিয়ার গোলে ম্যাচের ৮০ মিনিট পর্যন্ত প্রায় একতরফা খেলেই আর্জেন্টিনা এগিয়ে ছিল ২-০ গোলে। ওই সময় ড্রেক নিশ্চয়ই আনন্দে লাফাচ্ছিলেন। কিন্তু ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে পরপর দুটি গোল (একটি পেনাল্টি) করে ম্যাচে সমতা ফিরিয়ে আনেন এর দুই মিনিটের মধ্যে। ড্রেক বাজি হেরে যান সেখানেই। হারান ১০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা।

 

অতিরিক্ত সময়ে মেসির গোলে ৩-২ গোলে আবার এগিয়ে গেলেও এমবাপ্পের পেনাল্টি ১২০ মিনিটেও জিততে দেয়নি আর্জেন্টিনাকে। যদিও ১১৯তম মিনিটে মার্তিনেজের অবিশ্বাস্য এক সেভ আর্জেন্টিনাকে বাঁচায় হারের হাত থেকে। খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। তাতে মার্তিনেজের বীরত্বে ৪-২ ব্যবধানে নিজেদের তৃতীয় বিশ্বকাপ জিতে নেন মেসিরা।

তবে এত টাকা হারিয়েও মন খারাপ হয়নি ড্রেকের। আর্জেন্টিনা জিতেছে, এতেই নাকি তিনি খুশি।

খেলাধুলা নিয়ে বাজি ধরায় ড্রেককে নিয়ে অনেক সমর্থকই প্রায়ই মজা করেন। এমন কথাও প্রচলিত রয়েছে, ড্রেক যেসব দলকে সমর্থন করেন, সেই দলগুলো শেষ পর্যন্ত হেরে যায়। এমনকি ড্রেকের সঙ্গে ছবি তোলায় এ এস রোমা দলকে একবার নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

সূত্র: প্রথম আলো
আইএ/ ১৯ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button