শিক্ষা

প্রথম-দ্বিতীয় শ্রেণির ভর্তিতে সময়সীমা, অন্য ক্লাসে থাকছে না

ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর – শিক্ষার্থী ভর্তিতে বিদ্যালয়ে ডিজিটাল লটারির আওতাভুক্ত সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের চার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এতে নির্বাচিত বৈধ শিক্ষার্থী ভর্তি, বসয়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। এসব নির্দেশনা মেনে শিক্ষার্থী ভর্তি করতে বলা হয়েছে।

সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

মাউশির নির্দেশনায় বলা হয়েছে—

১. ২০২৩ সালের শিক্ষাবর্ষে কেন্দ্রীয় ডিজিটাল লটারির আওতাভুক্ত সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের https://gsa.teletalk.com.bd/ লিংকে প্রবেশ করে প্রতিষ্ঠানের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করলে তার প্রতিষ্ঠানে আবেদনকারীদের তালিকা পেয়ে যাবেন। ডিজিটাল লটারিতে তার প্রতিষ্ঠানের জন্য নির্বাচিত প্রথম তালিকা এবং প্রথম অপেক্ষমান তালিকার শিক্ষার্থীদের আবেদন সংক্রান্ত তথ্য এই লিংক থেকে যাচাই করতে পারবেন। লিংকে নাম তথ্য টাইপ করে সাবমিট করলে আবেদনকারী কতবার আবেদন করেছে তা জানা যাবে।

এক্ষেত্রে কোনো আবেদনকারী তথ্য পরিবর্তন করে একাধিকবার আবেদন করলে ডিজিটাল লটারিতে তার ভর্তির নির্বাচন বাতিল বলে গণ্য হবে। কেননা ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে একই পছন্দক্রমে একাধিকবার আবদেন করা যাবে না বলে উল্লেখ ছিল। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে এবং নের্টিশ বোর্ডে প্রথম অপেক্ষমান তালিকা ঝুলিয়ে দিতে হবে।

২. সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত বৈধ প্রার্থী ছাড়া সংশ্লিষ্ট ভর্তি কমিটি অথবা প্রতিষ্ঠান প্রধান কোনো শিক্ষার্থীকে ভর্তি করাতে পারবেন না।

৩. ডিজিটাল লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে প্রথম শ্রেণির জন্য ৬ প্লাস এবং দ্বিতীয় শ্রেণির জন্য ৭ প্লাস বছর প্রযোজ্য হবে। অন্য শ্রেণির ক্ষেত্রে এই শর্ত প্রযোজ্য হবে না।

৪. বেসরকারি স্কুল, স্কুল অ্যান্ড কলেজে (মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিকস্তর) শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালা-২০২২ এর অনুচ্ছেদ ১০ এর ১০.৬ এ অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক/কর্মচারীদের অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্ট তহবিলের জন্য ভর্তিকালীন সময়ে শিক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট হিসাব থেকে জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্ট তহবিলের জন্য ভর্তিকালীন সময়ে শিক্ষর্থীর কাছে এ অর্থ আদায় করে প্রতিষ্ঠানের তহবিলে/ব্যাকে জমা রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ১৯ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button