ইউরোপ

ইউক্রেনজুড়ে বিমান হামলার সতর্কতা জারি

কিয়েভ, ১৭ ডিসেম্বর – ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোতে রাশিয়ার ব্যাপক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার একদিন পর শনিবার রাজধানী কিয়েভসহ ইউক্রেন জুড়ে বিমান হামলার সাইরেন আবারও বেজে উঠেছে । কর্মকর্তারা বলেছেন, রাশিয়ার জ্বালানি অবকাঠামোতে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর আশঙ্কায় এই সাইরেন বাজানো হচ্ছে।

কিয়েভ শহরের সামরিক প্রশাসন টেলিগ্রামে ম্যাসেজিং অ্যাপে এক পোস্টে বাসিন্দাদের উদ্দেশ্য করে বলেছে, অনুগ্রহ করে যত দ্রুত সম্ভব আশ্রয়কেন্দ্রে যান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বেলারুশের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হাজুন (যারা বেলারুশের সামরিক কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করে) বলেছে, বেশ কয়েকটি রাশিয়ান যুদ্ধবিমানকে ইউক্রেনের উত্তর সীমান্তের কাছে বেলারুশের আকাশে উড়তে দেখা গেছে। তবে রয়টার্স এই তথ্য স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি।

এরআগে শুক্রবার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র নেমে আসে ইউক্রেনের মাটিতে। ৭০টিরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে দিনভর। এরমধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র আছড়ে পড়েছে রাজধানী কিয়েভে। যার ফলে কিয়েভজুড়ে ইমার্জেন্সি ব্ল্যাকআউট ঘোষণা করতে হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর এই প্রথম ইউক্রেনে এত বড় মাপের হামলা চালাল রাশিয়া।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুইদিনের ভয়াবহ হামলায় বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে পুরো ইউক্রেন। তীব্র ঠান্ডায় অন্ধকারে লাখো বাসিন্দা। ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে মূল প্রশাসনিক ভবন। তাছাড়া, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন- রেডক্রসের সহায়তা কেন্দ্রেও পড়েছে গোলাবারুদ। তাতে প্রাণ গেছে এক স্বেচ্ছাসেবী নারী চিকিৎসক এবং এক রোগীর। গেল মাসেই রাশিয়ার দখল থেকে খেরসন পুনর্নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল ইউক্রেনীয় বাহিনী।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত মাসে খেরসনের নিয়ন্ত্রণ ফিরে পায় ইউক্রেন। ফেব্রুয়ারিতে রুশ হামলা শুরুর পর খেরসনের নিয়ন্ত্রণ হারানো ছিল মস্কোর সবচেয়ে বড় ধাক্কাগুলোর একটি।

ইউক্রেনের সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, শুক্রবার রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কমপক্ষে ১২ জনের মৃত্যৃ হয়েছে। মধ্যাঞ্চলীয় শহর কাইরি রিহের একটি অ্যাপার্টমেন্টে ক্ষেপণাস্ত্র আছড়ে পড়ে, সেই হামলায় কমপক্ষে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে, ইউক্রেনের দক্ষিণে অবস্থিত খেরসনে ক্ষেপণাস্ত্রের হামলায় একজনের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার লাগাতার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরই এক ভিডিও ভাষণে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানান, ৭০টিরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। তিনি দাবি করেন, রাশিয়ার কাছে আরও অনেক ক্ষেপণাস্ত্র মজুত রয়েছে, যা দিয়ে একাধিক বড় হামলা চালাতে পারে। তাই পশ্চিমা দেশগুলোকেও আরও অস্ত্র সহায়তার আহ্বান জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতে যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই রাশিয়া ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরের পাশাপাশি একাধিক পরমাণু কেন্দ্রগুলিতেও লাগাতার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে শুক্রবার সবথেকে ভয়ঙ্কর হামলা চালায় রাশিয়া। বর্তমানে ইউক্রেনে প্রবল তুষারপাত হওয়ায়, ক্ষতিগ্রস্ত পরমাণু কেন্দ্র থেকে অত্যন্ত ক্ষতিকর তরল আশেপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/১৭ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button