ফুটবল

দাপুটে মরক্কোকে হারিয়ে ফাইনালে গতিশীল ফ্রান্স

দোহা, ১৫ ডিসেম্বর – ইতিহাস গড়তে পারল না আফ্রিকার সিংহ মরক্কো। কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ইউরোপিয়ান জায়ান্ট ফ্রান্সের কাছে ২-০ গোলে হেরে গেল আশরাফ হাকিমি-হাকিম জিয়েচরা। ফলে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন দিদিয়ের দেশমের দল টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করলো। অথচ পুরো ম্যাচেই বেশ দাপট দেখিয়ে খেলেছে অ্যাটলাস লায়নসরা।

বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) ফিফা বিশ্বকাপের ২২তম আসরের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে নিজেদের শক্তিশালী একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছিল মরক্কো। কিন্তু ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ের বিশ্বকাপের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে মরক্কোইয়ানরা। ফলে প্রথমই গোলের দেখা পেয়ে যায় ফরাসিরা।

পঞ্চম মিনিটে মরক্কোর ডি-বক্সে বল পেয়ে যান থিও হার্নান্দেজ। তার বা পায়ের বুলেট গতির শটে গোলকিপারকে ফাঁকি দিয়ে জালের টিকানা খুঁজে নেয়। এতে ফ্রান্স বেশ আত্মবিশ্বাসী ফুটবল খেলতে থাকে। তবে পিছিয়ে পড়ে মরক্কোও পাল্টা আক্রমণে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে একের পর এক চেষ্টা করেও তেমন সুযোগ তৈরি করতে পারেননি তারা। ফলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ফ্রান্স।

বিরতির পর মাঠে নেমে আক্রমণের গতি বাড়ায় মরক্কো। বেশ কয়েকবার ভালো আক্রমণও করে তারা। কিন্তু ফরাসি ডিফেন্সের কাছে বারবার বাধাপ্রাপ্ত হয়ে হতাশা নিয়ে ফিরতে হয়। পুরো ম্যাচে দারুণভাবে বল দখলে নিয়ে খেলেও ফিনিশিংয়ের অভাবে জালের দেখা পায়নি মরক্কোর ফরোয়ার্ডরা।

তবে বড় ম্যাচে সুযোগ মিস করেননি ফ্রান্সের ফরোয়ার্ডরা। ৮০তম মিনিটে ভুলের খেসারত দেয় মরক্কো। উসমান দেম্বেলের বদলে মাঠে নামা কলো মুয়ানির গোলে ২-০ ব্যবধানে লিড নেয় ফরাসিরা।

 

দারুণ এক কাউন্টার এটাকে এমবাপ্পের একক নৈপুণ্যে ডিবক্সের ভেতর শট নিলে মরক্কোর ডিফেন্ডারদের পায়ে লেগে চলে যায় ২ মিনিট আগে বদলি হিসেবে নামা কলো মুয়ানির কাছে৷ এমন সুযোগ আর তিনি মিস করেননি। ডান পায়ে বলে শুধু টাচ করে ফ্রান্সের জার্সি গায়ে নিজের প্রথম গোলটি করেন তিনি।

দুই গোলে পিছিয়ে থেকে আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি মরক্কো। ৯২ মিনিটে ডিবক্সের বাইরে থেকে মরক্কোর উনাহির শট চলে যায় গোলবারের উপর দিয়ে। শেষ দিকে আরো কয়েকবার ফ্রান্স আক্রমণভাগে বল নিয়ে ঢুকলেও ফিনিশিংটাই করতে পারেনি ফ্রান্স।

ফলে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালের পথে ফ্রান্স। ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারাতে পারলে ইতালি ও ব্রাজিলের পর টানা দুই বিশ্বকাপ জয়ের রেকর্ডে নিজেদের নাম লেখাবে দিদিয়ের দেশমের দল। অন্যদিকে হারের সঙ্গে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলার স্বপ্ন শেষ মরক্কোর। তবে তাদের পারফরম্যান্স ফুটবল প্রেমীদের মনে আশার বাণী হয়ে ধরা দিবে এটা বলাই যায়।

সূত্র: আরটিভি নিউজ
আইএ/ ১৫ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button