দক্ষিণ এশিয়া

গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হলেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল

নয়াদিল্লি, ১৩ ডিসেম্বর – ভারতের গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বিজেপির ভূপেন্দ্র প্যাটেল।

সোমবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজ্যের গান্ধীনগর শহরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর উপস্থিতিতে শপথ নেন তিনি। এর মধ্যদিয়ে সপ্তম দফায় গুজরাট শাসন শুরু করল বিজেপি। এ রাজ্যে সেই ১৯৯৮ সাল থেকে ক্ষমতায় দলটি।

গুজরাটে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে রেকর্ড ভোটে জিতিয়েছেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল। গুজরাট বিধানসভার ১৮২ আসনের ১৫৬টি আসন জিতে রেকর্ড গড়েছে দলটি।

ঘাটলোদিয়া আসনের বিধায়ক ভূপেন্দ্র। ২০১৭ সালে ১ লাখ ১৭ হাজারের বেশি ভোটে আসনটি জিতেছিলেন তিনি। এবার প্রায় ২ লাখের কাছাকাছি ভোট পেয়ে রেকর্ড গড়েছেন। তারই পুরস্কার হিসেবে দ্বিতীয়বারের জন্য গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসলেন তিনি।

বিবিসির প্রতিবেদন মতে, ভূপেন্দ্র প্যাটেলের পাশাপাশি এদিন শপথ নেন আরও ২৫ জন মন্ত্রী। নিয়মানুযায়ী, মুখ্যমন্ত্রীসহ সবাইকে শপথ বাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল আচার্য দেবব্রত। নির্বাচনে দলের চমকপ্রদ জয় নিয়ে ভূপেন্দ্র বলেছেন, ‘গুজরাটের জনগণ আরও একবার নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্ব ও তার উন্নয়নের রাজনীতিকে অনুমোদন দিয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি আমাদের মধ্যে যে বিশ্বাসের জন্ম দিয়েছেন, তা অক্ষুণ্ণ রাখার নিশ্চয়তা দেয়া ও মানুষের সব সমস্যা, এমন কী সবচেয়ে ছোট সমস্যাটিও সমাধান করা আমাদের কর্তব্য।’

ভূপেন্দ্র বিজেপির একজন নিষ্ঠাবান দলীয় কর্মী হিসেবেই পরিচিত। পৌরসভা স্তর থেকে রাজ্যের রাজনীতিতে নিজের পথ তৈরি করেছেন তিনি। ৬০ বছর বয়সী ভূপেন্দ্রকে ২০২১ সালে অনেকটা আকস্মিকভাবেই প্রথম গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসানো হয়।

গুজরাটের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানির পদত্যাগের পর বিজেপি নেতৃত্ব তার জায়গায় ভূপেন্দ্র প্যাটেলকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে আনার সিদ্ধান্ত নিলে অনেকেই এতে হতবাক হয়েছিলেন।

২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে রাজনীতিতে খুব বেশি পরিচিত ছিলেন না ভূপেন্দ্র প্যাটেল। ওই সময়ে তার সরকারে থাকার কোনও পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না। যদিও তিনি পৌরসভার দীর্ঘদিনের সদস্য ছিলেন। ২০১০ এবং ২০১৫ সালে গুজরাটের বৃহত্তম পৌরসভা আহমেদাবাদের স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি।

ভূপেন্দ্রর জন্ম গুজরাটের বাণিজ্যিক রাজধানী আহমেদাবাদে। রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার আগে তিনি সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশুনা করেছেন। যুবক থাকাকালে তিনি জড়িত ছিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের (আরএসএস) সঙ্গে।

গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালে গত একবছরে নিজেকে নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে কিছু কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ভূপেন্দ্র।
আর গুজরাটে বিশেষ করে ভোটে জয়ী হওয়ার জন্য রাজনীতিতে কাদভা পাটিদার নামে এ প্রভাবশালী কৃষি সম্প্রদায়ের সমর্থন পাওয়া খুবই প্রয়োজন ছিল বিজেপি’র জন্য। তাই কাদভা পাটিদার সম্প্রদায়ের মন পেতে তাদের সম্প্রদায় থেকেই ভূপেন্দ্র প্যাটেলকে মুখ্যমন্ত্রী করেছিল বিজেপি।

সূত্র: সময় টিভি
আইএ/ ১৩ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button