ফুটবল

‘ব্রাজিলের থেকে আর্জেন্টিনায় মারকুটে ফুটবলার বেশি’

দোহা, ১২ ডিসেম্বর – ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে লুকা মদ্রিচের ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ ব্যবধানে হেরে গিয়েছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। চার বছর পর ফের একবার আর্জেন্টিনার সামনে ক্রোয়েশিয়া। আর এবার মঞ্চ সেমি ফাইনাল। এমন একটা ম্যাচে লিওনেল স্কালোনির দল বদলার মেজাজে মাঠে নামবে। সেটা জানেন ক্রোয়েশিয়ার কোচ জাল্টকো দালিচ। এরমধ্যে আবার বাড়তি চাপের কারণ, মেসির সাম্প্রতিক ফর্ম। তাই বিপক্ষ দলকে ‘ভয়’ পাচ্ছেন ক্রোয়েশিয়ার হেড কোচ।

সাংবাদিক বৈঠকে উঠেছিল চার বছর আগের সেই ম্যাচের প্রসঙ্গ। সেই ম্যাচ নিয়ে প্রশ্ন উঠলেই জাল্টকো দালিচ বলেন, আর্জন্টিনা গত বিশ্বকাপের হিসেব নিতে চাইবে। আমরা সেটা ভালোভাবে জানি। গত কয়েকটি ম্যাচে আর্জেন্টিনা আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলেছে। ওরা সেমি ফাইনালেও সেই নীতি নিয়েই খেলবে। তাই আমরা আর্জেন্টিনাকে নিয়ে চিন্তিত।

ব্রাজিলকে কাঁদানোর পর এবার আর্জেন্টিনার চোখে জল এনে দেওয়ার পালা। তবে সবচেয়ে বড় বাধা যে মেসি, সেটা জানেন দালিচ। তাই মেসির ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই দালিচ বলেন, মেসিকে কীভাবে থামানো যায়, সেই দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে। দলগত খেলায় ব্যক্তিগত নৈপুণ্য কাজ করে না। আমরা আগে কাউকে মার্কিং করিনি, এবারও তেমন কোনও ছক নেই। তবে মেসিকে খেলার জন্য জায়গা কমিয়ে দিতে হবে। ও খুব বেশি দৌড়ায় না। বলের পিছনেও বেশি ছোটে না। মেসি সবসময় বলের জন্য অপেক্ষা করে। আর বল ওর পায়ে নেওয়ার পর মেসি কেমন পারফর্ম করে সেটা দুনিয়ার সবাই জানে। তাই আমাদের সাবধান থাকতে হবে। আমাদের ভালোভাবেই প্রস্তুত থাকতে হবে।

কাতারে আর্জেন্টিনার শুরুটা হয়েছিল সৌদি আরবের কাছে হার দিয়ে। তবে শুরুর ওই ধাক্কা সামলে মেসিরা জায়গা করে নিয়েছেন শেষ চারে। গ্রুপ পর্বে মেক্সিকো ও পোল্যান্ড, দ্বিতীয় রাউন্ডে অস্ট্রেলিয়া আর কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসকে হারিয়েছে আলবেসেলেস্তেরা।

অন্যদিকে রুদ্ধশ্বাস কোয়ার্টার ফাইনালে টাইব্রেকারে ব্রাজিলকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে ক্রোয়েশিয়া। দালিচের মতে ব্রাজিলের বিরুদ্ধে যে ফর্মুলায় জয় এসেছিল, সেটা কাজে লাগবে না আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে। তিনি মনে করেন শারীরিক ফুটবল খেলার ব্যাপারে ব্রাজিলের থেকে এগিয়ে আর্জেন্টিনা। মেসির দলে মারকুটে ফুটবলারের সংখ্যা বেশি। স্কিল এবং শক্তির ককটেল আছে মেসিদের দলে। তাই শুধু বড় শরীর দিয়ে আর্জেন্টিনাকে আটকানো যাবে না। জোনাল মার্কিং দিয়ে খেলতে হবে তাদের।

তাই দালিচ যোগ করলেন, অতীতের তুলনায় এই আর্জেন্টিনা দলে মেসিকে রিটার্ন বল দেওয়ার ফুটবলার অনেক বেশি। ডি পল এবং লিওনার্দো পারেদেস মাঠের মাঝখানে গা জোয়ারি ফুটবল খেলেন। ডিফেন্সে নিকোলাস ওটামেন্ডি চোরাগুপ্তা ফাউল করতে ওস্তাদ। তাই আমাদের ফুটবলারদের নিজেদের মধ্যে মাঠে যত বেশি দূরত্ব কম রাখতে পারবে। মেসি এখনও তাদের প্রধান ফুটবলার। কিন্তু পাশাপাশি জুলিয়ান আলভারেজ, লাউতোরা মার্টিনেজ প্রচন্ড বুদ্ধিদীপ্ত ফুটবল খেলছে। তাই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ১৩ ডিসেম্বর লুসাইল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় সেমিফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা। পরদিন অপর সেমিফাইনালে মরক্কো খেলবে ফ্রান্সের বিপক্ষে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ১২ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button