জাতীয়

১০ ডিসেম্বর ঢাকায় সমাবেশ হবেই, দ্বিধা রাখবেন না

ঢাকা, ০৬ ডিসেম্বর – আগামী ১০ ডিসেম্বরের ঢাকার সমাবেশ নিয়ে কোনো প্রকার দ্বিধা না রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, দেশের মানুষ জেগে উঠেছে, এখন সামনে এগিয়ে যাওয়ার সময়। সরকার নার্ভাস হয়ে পড়েছে। সে কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে, যেন আমরা সমাবেশ করতে না পারি।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ‘ভায়োলেন্স অ্যান্ড পলিটিক্স অব ব্লেমিং’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর হোটেল লেকশোরে এ সেমিনারের আয়োজন করে বিএনপি।

ফখরুল বলেন, আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় সমাবেশ হবে। এ নিয়ে মনে কেউ দ্বিধা রাখবেন না। ১০ ডিসেম্বর জাতির উদ্দেশে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দেওয়া হবে। সেই কর্মসূচি নিয়ে জনগণ মাঠে নেমে পড়বেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ জেগে উঠেছে। এখন সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার সময়। যে জাতি স্বাধীনতা যুদ্ধ করে ছিল, মুক্তির জন্য আজ সেই জাতির কী করুন পরিণতি।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, সরকার সচেতনতার সঙ্গে বিদেশে টাকা পাচার করেছে। ব্যাংক লুটপাট করে ছারখার করে দিয়েছে। দেউলিয়ার পথে দেশ। মানুষ যেভাবে জেগে উঠেছে, তাতে আমাদের জয় হবেই। বিজয়ের পর আন্দোলনকারী দলগুলোকে নিয়ে জাতীয় সরকার গঠন হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার চাপার ওপর ১৪বছর ক্ষমতায় টিকে আছে। আমরা যে দাবি নিয়ে সমাবেশ করছি সেটা জনগণের দাবি। এ কারণে সমাবেশে বিএনপির নেতাকর্মীর চেয়ে সাধারণ জনগণের উপস্থিতি বেশি।

তিনি বলেন, ভোট চোর হিসেবে আওয়ামী লীগকে বোঝায় এটি সাধারণ জনগণও জানে। আর প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ভোট চোরকে কেউ ভোট দিয়েন না। অর্থাৎ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়েন না। এখন আমাদের চূড়ান্তভাবে নাড়া দিতে হবে এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মঈন খান বলেছেন, নয়টি বিভাগে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করেছে বিএনপি। কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলা হয়েছে- সেটা দেখাতে পারবেন না। সরকার নার্ভাস হয়ে পড়েছে সে কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে, যেন আমরা সমাবেশ করতে না পারি।

বিএনপির গোলটেবিল বৈঠকে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনারের প্রতিনিধি টম্বাজ, নরওয়ে দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন সিলজে ফাইন ওয়াননিবো, অস্ট্রেলিয়া সেকেন্ড সেক্রেটারি ডানকান কুলোচ ও ইরাকের প্রতিনিধি অংশ নেন।

এছাড়া অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ, বেগম সেলিম রহমান,ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দীন,আলতাফ হোসেন চৌধুরী, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ,নিতাই রায় চৌধুরী,জয়নাল আবেদীন,শাহজাহান ওমর,আব্দুল আউয়াল মিন্টু, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার, জয়নুল আবেদীন ফারুক,তাজমীর এস ইসলাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মজিবুর রহমান সরোয়ার, প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এনি,সাংগঠনিক সম্পাদক ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button