ইউরোপ

১৩ হাজার সেনা নিহত হয়েছে, বলছে ইউক্রেন

কিয়েভ, ০২ ডিসেম্বর – ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ দশ মাসে গড়িয়েছে। এখনও যুদ্ধ থামার লক্ষণ দেখছে না বিশ্ববাসী। এই যুদ্ধে ইউক্রেনের ১৩ হাজার সেনা নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির এক জেষ্ঠ্য কর্মকর্তা।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা মাইখাইলো পোডোলিয়াক বলেছেন, যুদ্ধে ইউক্রেনের ১০ হাজার থেকে ১৩ হাজার সেনা নিহত হয়েছে।

ইউক্রেনের পক্ষে হতাহতের পরিসংখ্যান দেওয়ার ঘটনা বিরল। তবে পোডোলিয়াকের মন্তব্য দেশটির সামরিক বাহিনীর কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

গত জুনে তিনি বলেছিলেন, যুদ্ধে দেশটির একশ থেকে দুশো সেনা প্রতিদিনই নিহত হচ্ছে।

গত মাসে মার্কিন সামরিক বাহিনীর শীর্ষ জেনারেল মার্ক মিলি জানান, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে রাশিয়ার অন্তত ১ লাখ ও ইউক্রেনের ১ লাখ সেনা হতাহত হয়েছে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে।

গত বুধবার এক ভিডিও বার্তায় ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন দার লায়েন বলেন, যুদ্ধের ইউক্রেনের ১ লাখ সেনা নিহত হয়েছে। তবে পরে তিনি এটি ভুল বলে আবারও জানান, হতাহতের সংখ্যা ১ লাখ।

ইউক্রেনের চ্যানেল ২৪ টেলিভিশনকে পোডোলিয়াক বলেন, কিয়েভ নিহতদের সংখ্যা নিয়ে খোলামেলা কথা বলছে। তিনি বলেন, জেনারেল স্টাফদের তথ্য মূল্যায়ন করে যেটি জানা যাচ্ছে তা হলো ১০ থেকে সাড়ে ১২ হাজার বা ১৩ হাজারের মতো সেনা নিহত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নিহত বেসামরিক মানুষের সংখ্যা ‘উল্লেখযোগ্য’ হতে পারে।

বিবিসির সংবাদে ৩ হাজার ৬০০ বেসামরিক লোক নিহত হওয়ার খবর জানানো হয়েছিল গত জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে। তবে সেটি এখন আরও বেশি হতে পারে।

পোডোলিয়াক আরও জানান, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি হামলা শুরু হওয়ার পর থেকে ১ লাখ রুশ সেনা নিহত এবং ১ থেকে দেড় লাখ আহত হতে পারে বা নিখোঁজ থাকতে পারে।

বিবিসির রাশিয়া সার্ভিস বলছে, কমপক্ষে ৯ হাজার ৩১১ জন সেনা নিহত হয়েছে রাশিয়ার। তবে প্রকৃত মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৬০০-র বেশি হতে পারে।

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ অস্থিরতা তৈরি করেছে বিশ্ববাজারে। অধিকাংশ দেশে বেড়েছে সব পণ্যের দাম। বিভিন্ন দেশে সাধারণ মানুষের মধ্যে এক ধরনের চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। কোথাও কোথাও সেই ক্ষোভ সহিংস রুপ নিচ্ছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ বন্ধ না হলে বিশ্ব অর্থনীতিতে দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব পড়বে।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ০২ ডিসেম্বর ২০২২

Back to top button