জাতীয়

যশোরে আমার নাড়ির টান আছে

যশোর, ২৪ নভেম্বর – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যশোরে আমার নাড়ির টান আছে। এখানকার মাটিতে আমার নানা শেখ জহুরুল হক শুয়ে আছেন।

তিনি যশোরে চাকরি করতেন। আমার মায়ের বয়স যখন তিন বছর ছিল, তখন তিনি মারা যান। ওই সময় যোগাযোগ ব্যবস্থা এতই খারাপ ছিল, এর কারণে এখানে আসা যায়নি। তাই আমার নানাকে এখানে দাফন করা হয়েছে। এখানে আমার নানার স্মরণে ট্রেনিং সেন্টার করা হবে।
বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) জেলা স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রায় পাঁচ বছর পর যশোরে আসেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যশোর স্টেডিয়াম সংস্কার করা হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এজন্য যা যা দরকার আমাদের সরকার কাজ করবে। ওয়াদা চাই, আপনারা আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে আমাদের জয়যুক্ত করবেন।

তিনি আরো বলেন, অভয়গরে ইপিজেড করে দিচ্ছে। সেখানে ৫০০ একর জমি নেয়া হয়েছে। সেখানে বহু মানুষের কর্মস্থান হবে। বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে।

জনসভায় যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও বক্তব্য দেন।

তিনি বলেন, খেলা হবে। খেলা হবে বিএনপির বিরুদ্ধে। খেলা হবে দুঃশাসনের বিরুদ্ধে। খেলা হবে হাওয়া ভবনের বিরুদ্ধে। বিএনপির আরেক নাম বাংলাদেশ নালিশ পার্টি।

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রাচীন জনপদ যশোর, যা জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় প্রায় ২৪০ বছর আগে, ১৭৮১ সালে। যশোর পৌরসভা হয়েছে ১৮৬৪ সালের ১ আগস্ট, তাও ১৫৭ বছর আগে। সে সময়ের যশোর পৌর সমিতি স্বাধীনতার পর পৌরসভার মর্যাদা পায়। ইতিহাসের সাক্ষী এ পৌর শহর ১৪ দশমিক ৭২ বর্গকিলোমিটার, লোকসংখ্যা ৪ লাখ ৪৭ হাজার ৯১৪।

সূত্র: বাংলানিউজ
আইএ/ ২৪ নভেম্বর ২০২২

Back to top button