জাতীয়

এবার বিদ্যুতের খুচরা দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

ঢাকা, ২১ নভেম্বর – পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির খবরে বিদ্যুৎ বিতরণ কম্পানিগুলোও গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিতে শুরু করেছে এ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে (বিইআরসি)। গ্রাহক পর্যায়ে দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়েছে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো)। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলায় এই বিতরণ প্রতিষ্ঠানটি বিদ্যুৎ বিতরণ করে।

সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ওজোপাডিকোর এমডি মো. আজহারুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব আমাদের প্রতিনিধির মাধ্যমে সরাসরি বিইআরসিতে জমা দেওয়া হয়েছে। পাইকারিতে যে হারে দাম বেড়েছে সেই হারেই খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। ’
তিনি বলেন, ‘যখন পাইকারিতে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির গণশুনানি হয়েছিল, তখনই গ্রাহক পর্যায়ে মূল্যবৃদ্ধির একটি প্রস্তাব আমরা প্রস্তুত করে রেখেছিলাম। এখন সেটি নতুন করে গুছিয়ে জমা দিয়েছি। ’

বিতরণ কম্পানি সূত্রে জানা গেছে, পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধিতে গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব তৈরি করছে বিতরণকারী বাকি প্রতিষ্ঠানগুলো। পাইকারিতে মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাবের আলোকে এই দাম বাড়ানোর প্রস্তাব তৈরি করছে তারা। খুব শিগগিরই বাকি কম্পানিগুলো বিইআরসিতে তাদের প্রস্তাব জমা দেবে বলেও জানা গেছে।

দেশে বিদ্যুতের একক পাইকারি বিক্রেতা বিপিডিবি। তাদের কাছ থেকে বিদ্যুৎ কিনে গ্রাহক বা খুচরা পর্যায়ে বিতরণ করছে দেশের পাঁচটি কম্পানি। এগুলো হলো ডিপিডিসি, ডেসকো, আরইবি, নেসকো ও ওজোপাডিকো। বিপিডিবিও পাইকারি বিদ্যুৎ বিক্রির পাশাপাশি দেশের কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে।

সোমবার পাইকারিতে বিদ্যুতের দাম ১৯ দশমিক ৯২ শতাংশ বাড়িয়েছে বিইআরসি। এতে প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ পাঁচ টাকা ১৭ পয়সা থেকে বেড়ে হয়েছে ছয় টাকা ২০ পয়সা। যা আগামী ডিসেম্বর থেকেই কার্যকর হবে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ
এম ইউ/২১ নভেম্বর ২০২২

Back to top button