ফুটবল

মাঠে নামার আগেই হলুদ কার্ড দেখবেন ন্যুয়ার-কেইনসহ একঝাঁক তারকা

দোহা, ২১ নভেম্বর – সমকামীদের জন্য কাতার বিশ্বকাপ নয়- এমন কথা বহু আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল। কাতার সরাসরি সমকামীদের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞার কথা বলেনি। তবে স্থানীয় আইনের কথা বারবার স্মরণ করিয়ে দিয়েছে তারা। কাতারের স্থানীয় আইন কোনোভাবেই সমকামীদের স্বাগত জানানোর কথা নয় বিশ্বকাপে।

এ বিষয়টা সামনে রেখেই সম্ভবত, ফিফাও এবারের বিশ্বকাপের জন্য নতুন আইন জারি করেছে। তারা বলে দিয়েছে, বিশ্বকাপে সমকামীদের প্রশ্রয় দেয়, এমন কোনো কিছু পরিধান করতে পারবে না কোনো খেলোয়াড়। করলেই জরিমানা, শাস্তি।

জার্মানি, ইংল্যান্ড, নেদারল্যান্ডসসহ বেশ কিছু ইউরোপীয় দেশ আবার সমকামীদের অধিকার প্রশ্নে খুব সচেতন। তারা খেলার মাধ্যমে সমকামীদের অধিকারকে তুলে ধরার জোর চেষ্টা করেন। জার্মান ফুটবল দলের অধিনায়ক ম্যানুয়ে ন্যুয়ার, ইংল্যান্ড দলের অধিনায়ক হ্যারি কেইন, নেদারল্যান্ডস দলের অধিনায়ক ভিরগিল ফন ডাইকরা- সমকামীদের সমর্থন জানিয়ে একধরনের আম্বব্যান্ড পরেন।

যে আর্মব্যান্ডে শোভা পায় একটি হার্ট (লাভ) চিহ্ন। আবার সেই হার্টের চিহ্নটি রাঙানো রংধনুর রঙে। যা সমকামীদের প্রতীক। এটাকে নাম দেয়া হয়েছে ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড।

ফিফা নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, এটা মানবাধিকার নয়, সম্পূর্ণ রাজনৈতিক ইচ্ছার বাস্তবায়ন। আর খেলাধুলায় কোনো রাজনীতি চলবে না। সুতরাং, যেই ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পরে খেলতে নামবে, মাঠে নামার আগেই তিনি হলুদ কার্ড প্রাপ্ত হবেন।

কিন্তু ফিফার এই নিষেধাজ্ঞা মানতে রাজি নন জার্মানি অধিনায়ক ম্যানুয়েল ন্যুয়ার, ইংল্যান্ড অধিনায়ক হ্যারি কেইন এবং নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক ভিরগিল ফন ডাইক।

এই তিন অধিনায়কই ঘোষণা দিয়েছেন, বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তারা ‘ওয়ান লাভ আর্মবান্ড’ পরেই মাঠে নামবেন। এর অর্থ, মাঠে নামার আগেই হলুদ কার্ড দেখবেন তারা। তবুও, এই হলুদ কার্ডকে পরোয়া করছেন না জার্মানি, ইংল্যান্ড এবং নেদারল্যান্ডসের অধিনায়করা।

জার্মান পত্রিকা বিল্ড নিউজ প্রকাশ করেছে, জার্মান ফুটবল ফেডারেশন ম্যানুয়েল ন্যুয়ারের এই সিদ্ধান্তে চিন্তিত। তারা প্রাথমিকভাবে কথা বলে বিষয়টা সমাধানের চেষ্টা করছে। প্রথম ম্যাচে তারা খেলতে নামবে জাপানের বিপক্ষে।

নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক ভিরগিল ফন ডাইক তো সরাসরি ঘোষণা দিয়েছেন, ‘আমি অবশ্যই আগামীকাল ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামবো। আমাদের পয়েন্ট অব ভিউতে কোনো পরিবর্তন আনবো না। আমি যদি হলুদ কার্ডও দেখি, তবুও সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবো না। তবে এটা নিয়ে আমি অবশ্যই কথা বলবো। কারণ, একটি হলুদ কার্ড কাঁধে নিয়ে তো খেলতে পছন্দ করবো না।’

ফিফার পক্ষ থেকে ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে (এফএ) বলে দেয়া হয়েছে, তাদের অধিনায়ক হ্যারি কেইন যেন ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পরে না নামে। নাহলে, মাঠে নামার আগেই হলুদ কার্ড দেখতে হবে তাকে। মোট কথা হ্যারি কেইনের ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ফিফা।

ফিফার ইকুইপমেন্ট রুলস অ্যান্ড রেগুলেশনে বলা হয়েছে, ‘ফিফার টুর্নামেন্টে ম্যাচ স্টাফরা অবশ্যই অফিসিয়াল পোশাক পরিধান করবে। ফিফার দেয়া ইকুইপমেন্টগুলোও সরবরাহ করা হবে। ফিফার ইভেন্ট ব্যাজও সংযুক্ত থাকবে। সেটা পোশাক হতে পারে কিংবা আর্মব্যান্ডও হতে পারে।’

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২১ নভেম্বর ২০২২

Back to top button