জাতীয়

‘আসামি ছিনিয়ে নিয়েছেন কারা, তাদের সম্পর্কে তথ্য পেয়েছি’

ঢাকা, ২০ নভেম্বর – ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছেন, পুলিশের চোখে স্প্রে মেরে ঢাকা চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের গেট থেকে দুই আসামিকে কারা ছিনিয়ে নিয়েছেন, তাদের সম্পর্কে তথ্য পেয়েছি। আশা করছি, দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।

রোববার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, দুজন আসামিকে কয়েকজন জঙ্গি এসে পুলিশকে আক্রমণ করে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ-সংক্রান্ত একটি মামলা হয়েছে। মামলায় আব্দুস সবুর ও আরাফাত রহমানসহ ২০ জনকে এজহারনামীয় আসামি করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাত ৭-৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, আদালতের সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। ইতোমধ্যে যারা পালিয়েছে তাদের গ্রেফতার করার কাজ শুরু হয়েছে।

এর আগে এদিন দুপুরে ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা।

ছিনিয়ে নেওয়া দুই আসামি হলেন মইনুল হাসান শামীম ও আবু সিদ্দিক সোহেল। শামীমের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকের মাধবপুর গ্রামে। সোহেলের বাড়ি লালমনিরহাটের আদিতমারীর ভেটোশ্বর গ্রামে। তাদের ধরতে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় চেকপোস্ট বসানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আজ ঢাকার সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালে মোহাম্মদপুর থানার একটি মামলায় তাদের হাজিরা করা হয়েছিল। হাজিরা শেষে হাজতখানায় নেওয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের প্রধান হারুন আর রশীদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, দুটি মোটরসাইকেলে চারজন লোক এসে পুলিশের চোখে স্প্রে করে আসামিদের ছিনিয়ে নিয়ে যান। তারা প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে দুই জঙ্গিকে গ্রেফতারে রাজধানীতে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে। রাজধানীর প্রতিটি থানা ও অন্যান্য ইউনিটকে চেকপোস্ট বসানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া সারাদেশের আদালতগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২০ নভেম্বর ২০২২

Back to top button