জাতীয়

‘আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর দেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত করেছে’

ঢাকা, ১৯ নভেম্বর – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গণতন্ত্র আছে বলেই বাংলাদেশে এতো উন্নতি হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর দেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত করেছে।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) গণভবনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সভায় তিনি এসব কথা বলেন। শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে যোগ দেন দলের প্রায় দুই ডজন সদস্য।

আগামী ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ২৩তম জাতীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে ধারাবাহিক বৈঠকের অংশ হিসেবে গণভবনে উপদেষ্টা পরিষদের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে ২০২০ সালের জানুয়ারিতে সর্বশেষ উপদেষ্টা পরিষদ এবং সভাপতিমণ্ডলীর যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২১ বছর পর আমরা ক্ষমতায় আসি। এরপর আমাদের চেষ্টা ছিল বাংলাদেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নতি আমরা কীভাবে করবো। ’

জিয়ার আমলের নির্বাচনের বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘তখন নির্বাচন বলতে কিছু ছিল না। ক্যান্টনমেন্টে বসে দল তৈরি করা হয়। দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে জিতে সেই দলকে অবৈধভাবে ক্ষমতায় আনার জন্য ভোট ঢাকাতি, ভোট চুরি করা হয়। কিছু এলিট শ্রেণিকে চাপ দিয়ে অর্থ দিয়ে তারা দলে ভেড়াতো। এই ছিল তাদের রাজনীতি। ’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সে সময় গণতন্ত্র বা গণতান্ত্রিক অধিকার মানুষের ছিল না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর এই প্রক্রিয়াটা শুরু করি। নির্বাচনে যতটুকু স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা সৃষ্টি হয়েছে, তা আমাদেরই আন্দোলনের ফসল। ’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি দ্বিতীয়বার জামায়তকে নিয়ে ক্ষমতায় এসে দুর্নীতি, খুন, সন্ত্রাস, মানি লন্ডারিং-এমন কোনো অপরাধ নেই যে করেনি। ’

রিজার্ভ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভ্যাকসিন, করোনা মোকাবিলায় সরঞ্জাম বিদেশ থেকে কিনে বিনা পয়সায় মানুষকে দিয়েছি। ভোজ্য তেল, জ্বালানি, গম, ভুট্টসহ প্রয়োজনীয় খদ্যশস্য কিনেছি। অনেক উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছি। আমাদের তিন মাসের আমদানির যে খরচ সেটা হাতে রেখেই আমরা খরচ করেছি। এখন যে রিজার্ভ আছে তা দিয়ে পাঁচ মাসের খরচ মেটানো যাবে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ১৯ নভেম্বর ২০২২

Back to top button