জাতীয়

আগামী নির্বাচন আওয়ামী লীগের অধীনে হবে না, এটা নির্ধারিত

নারায়ণগঞ্জ, ১৮ অক্টোবর – জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি (জেএসডি) আ স ম আব্দুর রব বলেছেন, আগামী নির্বাচন আওয়ামী লীগের অধীনে হবে না এটা বক্তৃতা করে বলার দরকার নেই। এটা বাংলাদেশে নির্ধারিত হয়ে গেছে। আমরা এখন আলাপ করছি এর পরের সরকার কী রকমের হবে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গণতন্ত্র মঞ্চের আয়োজিত সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। সরকার ও শাসন ব্যবস্থা পরিবর্তনে ঐক্যবদ্ধ হতে এবং রাজনৈতিক সভা সমাবেশে বাধা, হামলা মামলা, দমনপীড়ন, গুলি হত্যার প্রতিবাদে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, আজকের ডিসেম্বর হোক বা আগামী ডিসেম্বর হোক। এর চেয়ে বেশি আপনারা আর বাংলাদেশে শাসন করার অবস্থায় নেই। তাই চিন্তা করে কথা বলুন। কাল যখন ক্ষমতায় থাকবেন না তখন কেমন আচরণ আপনি দেখতে চান। আপনি আপনাদের মত নির্বাচন দেখতে চান, আপনাদের মত বিচার ব্যবস্থা দেখতে চান, আওয়ামী লীগের যারা আজকের মত প্রজায় পরিণত হবেন তারা কী এমন বাংলাদেশ দেখতে চান না সুশাসনের বাংলাদেশ চান? সুতরাং ভেবে চিন্তে কথা বলবেন।
আব্দুর রব বলেন, আপনারা প্রতিদিন যে পরিমাণ চুরি করেন আরও এক বছর যদি ক্ষমতায় থাকেন তাহলে গত পনেরো বছরের চেয়েও বেশি ক্ষতি করবেন। আমরা অন্তবর্তীকালীন সরকার চাই। তবে তারা একটি দলকে বসিয়ে দিবে তারা আবার চালাবে সেটার জন্য আন্দোলন করছি না। অন্তবর্তীকালীন সরকারকে দুটি কাজ করতে হবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন ব্যাবস্থা যেন এরপর থেকে প্রতিটি নির্বাচন যেন নিয়মতান্ত্রিক হয় এবং যে সংবিধানের কারণে আপনারা নিজেদের মন মত দেশ চালান সে সংবিধানের ক্ষমতাকাঠামো বদলাতে হবে। এগুলো করেই নির্বাচন করতে হবে। নির্বাচিত হবে করবো এ ধরনের বোকা কথার পেছনে ছুটে মানুষ বহু জীবন দিয়েছে।

গণতন্ত্র মঞ্চের সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রশীদ চৌধুরী, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর, ভাষানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক হাসনাত কাইয়ুম প্রমুখ।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
এম ইউ/১৮ অক্টোবর ২০২২

Back to top button