জাতীয়

সভাপতি-সম্পাদক পদে আলোচনায় যারা

চাঁদপুর, ১৮ অক্টোবর – ৬ ডিসেম্বর চাঁদপুর সদর ও শহর আ.লীগের সম্মেলন। ১৯ বছর পর সদর উপজেলা আর ১৬ বছর পর চাঁদপুর শহর আওয়ামী লীগের এ সম্মেলন হতে যাচ্ছে। সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার পর স্থানীয় নেতাকর্মীরা বেশ উজ্জীবিত। অনেকে তাদের প্রার্থিতা জানান দিচ্ছেন বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে। ১৬ নভেম্বর আওয়ামী লীগের এ দুটি শাখার বর্ধিত সভা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এ দিন সকালে শহর আওয়ামী লীগের আর বিকালে সদর উপজেলার বর্ধিত সভা হয়। জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ দুটি শাখার বর্ধিত সভায় জেলা সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলালসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, ২০০৩ সালে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। সে সম্মেলনে নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান সভাপতি এবং অ্যাড. জহিরুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এর পরের বছর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে অ্যাড. জহিরুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হলে তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তখন নিয়ম অনুযায়ী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হন আলী আরশাদ মিজি। এই ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিয়েই এক যুগেরও বেশি সময় ধরে চলছে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি। নতুন করে এবারের সম্মেলনে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে কারা আসছেন তা নিয়েও তৃণমূলে চলছে নানা বিশ্লেষণ। সভাপতি পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন-বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, সাবেক ছাত্রনেতা জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন বিল্লাল, বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী আরশাদ মিজি, সদরের যুগ্ম সম্পাদক আবদুল আজিজ খান বাদল ও সদর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজমুল পাটোয়ারী। সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় আছেন-সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আইয়ুব আলী বেপারী এবং সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য মকবুল হোসেন মিয়াজি।

২০০৫ সালে চাঁদপুর শহর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। সে সম্মেলনে নাছির উদ্দিন আহমেদ সভাপতি এবং লুৎফর রহমান পাটওয়ারী সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৩ সালের অক্টোবরে লুৎফর রহমান পাটওয়ারী মারা গেলে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হন আমিনুর রহমান বাবুল। এরপর ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে নাছির উদ্দিন আহমেদ সভাপতি নির্বাচিত হন। তিনি জেলা সভাপতি হওয়ার পর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ ছেড়ে দেন। এরপর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হন রাধা গোবিন্দ গোপ। সেই থেকে টানা ছয় বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে চলছে শহর আওয়ামী লীগ। এবার সম্মেলনে সভাপতি পদে আলোচনায় আছেন-সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মরহুম আবদুল করিম পাটোয়ারীর ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবু নাছের বাচ্চু পাটোয়ারী, শহর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদ আমিনুর রহমান বাবুল, শহরের সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম নুরু। সাধারণ সম্পাদক পদে-জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাড. জসিম পাটোয়ারী, শহরের যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ হোসেন মিঠু, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান অপু ও শহরের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ন কবিরের নাম শোনা যাচ্ছে।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/১৮ অক্টোবর ২০২২

Back to top button