সিলেট

দুদিন আগে থেকে আসছেন নেতাকর্মীরা, ক্যাম্প করে চলছে থাকা-খাওয়া

ছামির মাহমুদ

সিলেট, ১৮ নভেম্বর – সিলেটে আগামীকাল শনিবার বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশের একদিন আগে আজ শুক্রবার সকাল ছয়টা থেকে তিন জেলায় (সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জে) শুরু পরিবহন ধর্মঘট। ৩৬ ঘণ্টার এ ধর্মঘট চলবে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত। আর সিলেট জেলায় ধর্মঘট চলবে শনিবার সকাল-সন্ধ্যা। এ অবস্থায় যাতায়াতে বিঘ্নতা এড়াতে সমাবেশের আগের দিন থেকেই বিএনপি নেতাকর্মীরা সিলেটে আসতে শুরু করেছেন। এরই মধ্যে গণসমাবেশস্থল সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে এসেছেন হাজারো নেতাকর্মী। সেখানে তাদের থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মাঠে অবস্থান নেওয়া নেতাকর্মীরা বলছেন, ধর্মঘটের বিষয়টি মাথায় রেখেই তারা আগেভাগে সমাবেশস্থলে এসেছেন। শুক্রবার সারাদিন ও রাতেও আশপাশের জেলাগুলো থেকে বহু লোক আসবে। অনেকে শনিবার হেঁটেও সমাবেশস্থলে পৌঁছাবে।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে নগরের চৌহাট্টা এলাকার সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মাঠে বিভিন্ন অঞ্চল ও অঙ্গসংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের জন্য পৃথক ক্যাম্প করা হয়েছে। এসব ক্যাম্পেই তারা অবস্থান নিয়েছেন। নিজ নিজ প্যান্ডেলেই করা হয়েছে থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা। এছাড়া মাঠের মঞ্চের দিক ছাড়া বাকি তিন দিকেই শামিয়ানা টানিয়ে জেলা-উপজেলাভিত্তিক বড় বড় ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। রাতে প্যান্ডেলগুলোর সামনে করা হয় রান্নার আয়োজন। মঞ্চের ডানপাশেই পর্দা দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ছোট ছোট ঘর। ঘরের উপরে ব্যানারে লেখা রয়েছে ‘ক্যাম্প’।

বিএনপি নেতারা জানান, পরিবহন ধর্মঘটসহ নানা বাধার কারণে আগেভাগে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নেতাকর্মীরা সিলেটে আসতে শুরু করেছেন। তাদের জন্য এসব ক্যাম্প নির্মাণ করা হয়েছে। বিভিন্ন অঞ্চল ও অঙ্গসংগঠনগুলোর জন্য আলাদা আলাদা ক্যাম্প করা হয়েছে। এসব ক্যাম্পেই আগে আসা নেতাকর্মীরা অবস্থান নিয়েছেন। আজ রাতভর এবং কালও লোকজন আসবেন। তাদের খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সন্ধ্যায় গিয়ে দেখা গেছে, হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের জন্য নির্ধারিত ক্যাম্পে বসে এক নারী সবজি কাটছেন। রাতে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, ক্যাম্পের এক পাশে বড় হাড়িতে চলছে রান্নার আয়োজন। ক্যাম্পে থাকা হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির এক নেতা জানান, জি কে গউছের (বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক, হবিগঞ্জ জেলার যুগ্ন আহ্বায়ক ও সাবেক পৌর মেয়র) উদ্যোগে এই ক্যাম্প স্থাপন এবং এখানে হবিগঞ্জের নেতাকর্মীদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। তবে যে কোনো জেলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা এখানে খেতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খানসহ কেন্দ্রীয় নেতারা মাঠ পরিদর্শন করেছেন। এসময় সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

এসময় মঈন খান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, বিগত সমাবেশগুলোতে নেতাকর্মীদের ঢল দেখে সরকার আতঙ্কিত। মসনদ হারানোর চিন্তায় ভীত। এজন্য বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলা চলছে। মানুষকে নতুন করে ভয় দেখানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপি শান্তি চায়, ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা চায়। আমরা জনগণের কাছে গণতন্ত্র ও ক্ষমতা ফিরিয়ে দিতে চাই। বিএনপির পাশে জনগণ আছে। সে কারণেই গণসমাবেশগুলো জনসমুদ্রে পরিণত হচ্ছে।

জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী জানিয়েছেন, সমাবেশ ঘিরে গত দুই সপ্তাহ ধরে পুরো বিভাগের বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। কয়েকদিন ধরে চলছে আলিয়া মাঠ প্রস্তুত ও মঞ্চ তৈরির কাজ। শুক্রবারের মধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হবে।

সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী জানান, সিলেটে গণসমাবেশের জন্য ৭০ ফুট লম্বা ও ৩০ ফুট প্রশস্ত মঞ্চ নির্মাণ করা হচ্ছে।

গণসমাবেশ সফল করতে বিএনপি ছয়টি আহ্বায়ক কমিটি করেছে। আবাসন ব্যস্থাপনা কমিটির আহ্বায়ক কেন্দ্রীয় বিএনপির কার্যনির্বাহী সদস্য সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

মেয়র আরিফুল বলেন, সমাবেশ পণ্ড করতে সরকার নানাভাবে বাধা দিচ্ছে। পরিবহন ধর্মঘটও ডাকা হয়েছে। তাই আগেভাগে অনেক নেতাকর্মী আসা শুরু করেছেন। তাদের বিশ্রাম ও খাওয়ার জন্য মাঠের মধ্যে ক্যাম্প নির্মাণ করা হয়েছে। একেকটি ক্যাম্পে ৪৫০ থেকে ৫০০ জন থাকতে পারবেন। তবে শনিবার সমাবেশে আসা মানুষের জায়গা করে দিতে এসব ক্যাম্প ভেঙে ফেলা হবে।

জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ, সারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে দেশের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দেশের সব বিভাগীয় শহরে গণসমাবেশ করছে বিএনপি।

এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ১৯ নভেম্বর শনিবার সিলেটে গণসমাবেশ করবে দলটি। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সূত্র: জাগো নিউজ
আইএ/ ১৮ নভেম্বর ২০২২

Back to top button