দক্ষিণ এশিয়া

পাকিস্তানে পুলিশের টহল দলের ওপর গুলি, নিহত ৬

ইসলামাবাদ, ১৬ নভেম্বর – ‌পাকিস্তানে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে ছয় পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। নিহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে এক কর্মকর্তা এবং পাঁচ কনস্টেবল রয়েছেন। পুলিশ গাড়ি নিয়ে রাস্তায় টহল দেওয়ার সময় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা গুলি চালায়।

বুধবার পাকিস্তানের খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশে এ ঘটনা ঘটে। খবর দ্য ডন এবং এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, খাইবার-পাখতুনখোয়া (কেপি) প্রদেশের লাকি মারওয়াত এলাকায় অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা টহলরত পুলিশের একটি গাড়িতে হামলা চালাই। এতে বুধবার অন্তত ছয় পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। পুলিশের মুখপাত্রের মতে, খাইবার-পাখতুনখোয়া প্রদেশের চৌকি আব্বাসি এলাকায় হামলার এ ঘটনা ঘটে এবং নিহতরা একটি পুলিশভ্যানে সেখানে রুটিন টহলে নিযুক্ত ছিলেন।

নিহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে একজন হচ্ছেন এএসআই আলম দ্বীন। এ ছাড়া অন্য পাঁচ কনস্টেবল হলেন— পারভেজ, মাহমুদ, দিল জান, উবায়দুল্লাহ আহমেদ এবং নওয়াজ। এ ঘটনার পর এলাকায় আরও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ পুলিশভ্যানে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এবং নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। তিনি বলেছেন, পুলিশ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে অগ্রগামী হিসেবে গর্বিত ভূমিকা পালন করেছে।

তিনি আরও বলেন, মাতৃভূমির জন্য জীবন উৎসর্গকারী সন্তানদের জাতি স্যালুট জানায়। সন্ত্রাসীরা পাকিস্তানের শত্রু, সমগ্র পাকিস্তান সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রাচীর হয়ে থাকবে।

শেহবাজ আরও বলেন, প্রাদেশিক সরকারের উচিত মৃতদের সম্মান ও শহীদ হিসেবে সুযোগ-সুবিধা দেওয়া।

এদিকে খাইবার-পাখতুনখোয়া প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মেহমুদ খান এ ঘটনা আমলে নিয়েছেন এবং পুলিশের আইজির কাছে প্রতিবেদন চেয়েছেন। এ ছাড়া তিনি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক, শহীদদের আত্মত্যাগ বৃথা যাবে না।’

এর আগে গত মাসে খাইবার-পাখতুনখোয়া প্রদেশে হাজার হাজার মানুষ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্য প্রদর্শনে রাস্তায় নেমে আসেন। মূলত প্রদেশটির চারবাগে একটি স্কুলভ্যান বন্দুক হামলার কবলে পড়লে প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছিলেন তারা। স্কুলভ্যানে গুলির ঘটনায় চালক নিহত এবং দুই শিশু আহত হয়েছিল।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
এম ইউ/১৬ নভেম্বর ২০২২

Back to top button