জানা-অজানা

দৈনিক শনাক্তে শীর্ষে জাপান, মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্র

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে তিন লাখ ২০ হাজার ৩২২ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন লাখ ৮১ হাজার ৭৯৮ জন।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৬৬ লাখ ১৭ হাজার ৯৯৭ জন। এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৪ কোটি ১০ লাখ আট হাজার ১৮১ জনে। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬২ কোটি ছয় লাখ ৯২ হাজার ৯৬৯ জন।

এদিকে, বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এসময়ে মারা গেছেন ১৬৪ জন। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৭হাজার ৯৭২ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭৭ হাজার ৮৩৪ জন। করোনায় বিশ্বে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৯ কোটি ৯৯ লাখ ৭৪ হাজার ৩৮৭ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১১ লাখ ৬৩১ জন। সেরে উঠেছেন ৯ কোটি ৭৫ লাখ ৭২ হাজার ৬১৭ জন।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হিসাবে শীর্ষে জাপান। দেশটিতে নতুন করে এক লাখ দুই হাজার ৮২৯ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। একই সময়ে মারা গেছেন ৮৮ জন। সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ২৯৯ জন। এ নিয়ে জাপানে করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো দুই কোটি ৩৩ লাখ ১৯ হাজার ৯৪ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪৭ হাজার ৭১৫ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন দুই কোটি পাঁচ লাখ ৭২ হাজার ২৩৯ জন।

দৈনিক মৃত্যুর হিসাবে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স। ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ১১০ জন। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৯৭১ জন। এ নিয়ে ফ্রান্সে শনাক্ত রোগী বেড়ে হয়েছে তিন কোটি ৭১ লাখ ৮২ হাজার ১৬১ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন এক লাখ ৫৭ হাজার ৯৩১ জন। সেরে উঠেছেন তিন কোটি ৬৫ লাখ ৪৯ হাজার ৭৪৫ জন।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় পঞ্চম স্থানে থাকা ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন দুই হাজার ৫৮২ জন। মারা গেছেন ২৪ জন। দেশটিতে মোট শনাক্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিন কোটি ৪৯ লাখ ৬৩ হাজার ৯৮৫ জনে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ৮৮ হাজার ৭৭০ জন।

রাশিয়ায় একদিনে মারা গেছেন ৬৪ জন। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন চার হাজার ৪৩১ জন। এ নিয়ে শনাক্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই কোটি ১৫ লাখ আট হাজার ৯৬১ জন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ লাখ ৯১ হাজার ১৪৯ জন।

এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণ কোরিয়ায় ৩৯ জন, তাইওয়ানে ৪৩ জন, অস্ট্রেলিয়ায় ১১ জন, ইন্দোনেশিয়ায় ৪১ জন, পোল্যান্ডে ১৭ জন, মেক্সিকোতে ১৪ জন, মালয়েশিয়ায় ১২ জন, চিলিতে ১৩ জন, ফিলিপাইনে ১৫ জন, হংকংয়ে ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশের হুবেই শহরে প্রথম করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। কয়েক মাসের মধ্যেই ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বে। পরের বছরের ১১ মার্চ করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

আইএ/ ১৬ নভেম্বর ২০২২

Back to top button