উত্তর আমেরিকা

মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ

সাইফ আহমাদ

ওয়াশিংটন, ০৯ নভেম্বর – টান টান উত্তেজনা আর শীর্ষ নেতাদের মাঠ কাঁপানো প্রচারাভিযানে মঙ্গলবার শেষ হলো যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচন। ক্ষমতার ভারসাম্য বজায় রাখতে লাখ লাখ মার্কিনিরা ভোট দেন তাদের পছন্দের প্রার্থীদের। এবারের নির্বাচন ছিল ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট বাইডেন ও তার দলের ভাগ্য নির্ধারণের। যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের বাইরেও নির্বাচন প্রভাবিত করেছে রাশিয়া। পুতিনের ‘কাছের মানুষ’খ্যাত রাশিয়ার বহুল আলোচিত ভাড়াটে সেনাদল ‘দ্য ওয়াগনার গ্রুপ’ নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেছে বলে খবর বেরিয়েছে। এরই মধ্যে সেটি স্বীকারও করেছে দলটির প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোজিন। সোমবার রুশ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত বিবৃতিতে তিনি স্বীকার করে বলেন, মার্কিন নির্বাচনে আগেও প্রভাব খাটিয়েছেন তারা। ভবিষ্যতেও খাটাবেন। আলজাজিরা, এপি। পুতিনমিত্র ধনকুবের প্রিগোজিন বলেন, সাবধানতার সাথে সূক্ষ্মভাবে কৌশল প্রয়োগের অভিজ্ঞতা আছে আমাদের। কারণ, আমরা জানি কীভাবে কাজটি করতে হয়। সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম অস্ত্রোপচারে আমরা একই সঙ্গে কিডনি ও লিভার-দুটোই অপসারণ করি। যদিও তিনি পুরো ব্যাপারটি ব্যাখ্যা করেননি। ইতোমধ্যে তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। গত জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রিগোজিনের হস্তক্ষেপের বিষয়ে তথ্য পেতে এক কোটি ডলার পুরস্কার ঘোষণা করে। ইউক্রেন যুদ্ধের আগে তেমন পরিচিতি ছিলেন না প্রিগোজিন। তবে যুদ্ধের পর তিনি রুশ সেনাদের সমালোচনা করে পরিচিতি পেয়েছেন।

গত সেপ্টেম্বরে প্রিগোজিন ওয়াগনার গ্রুপ প্রতিষ্ঠার কথা স্বীকার করেন। এটি আফ্রিকা, সিরিয়া এবং ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের জন্য অভিযুক্ত। যদিও এর আগে এই সংগঠনের সঙ্গে নিজের সম্পৃক্ততা অস্বীকার করেছিলেন পুতিনের এই ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী। বছরের পর বছর গোপনীয়তা শেষ করে গত মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বরে প্রিবুওশন প্রথমবারের মতো ওয়াগনার গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতার কথা স্বীকার করেন। ওই সময় তিনি জানান, তিনিই ওয়াগনারের প্রতিষ্ঠাতা। ওয়াগনার গ্রুপের সদস্যদের বেশির ভাগ সাবেক রুশ সেনা। সিরিয়া, আফ্রিকান দেশ ও ইউক্রেনে সক্রিয় রয়েছে এই গ্রুপের সদস্যরা। যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ডেমোক্রেটদের পরাজয় হলে ইউক্রেনের সব প্রকারের সাহায্য বন্ধ করার ঘোষণা দেয় রিপাবলিকান নেতারা। অন্যদিকে সোমবার হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, রিপাবলিকানরা নির্বাচনে জয়ি হলেও ইউক্রেনের প্রতি মার্কিন সমর্থন অটুট থাকবে। হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি কারিন জিন-পিয়েরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আত্মবিশ্বাসী যে মার্কিন সমর্থন অটুট থাকবে এবং অটল থাকবে। এর আগেই অবশ্য হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভের স্পিকার হতে যাওয়া রিপাবলিকান নেতা কেভিন ম্যাকার্থি সতর্ক করেছেন, তার দলের হাতে নিুকক্ষের নিয়ন্ত্রণ গেলে ইউক্রেনের জন্য কোনো ‘ব্ল্যাঙ্ক চেক’ থাকবে না।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/০৯ নভেম্বর ২০২২

Back to top button