জাতীয়

করোনা নিয়ন্ত্রণে ৪০ হাজার কোটি টাকার টিকা দেওয়া হয়েছে

মাদারীপুর, ০৮ নভেম্বর – স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, করোনার প্রকোপ এমনি এমনি কমেনি। এজন্য সরকারকে কাজ করতে হয়েছে। দেশের মানুষকে ৪০ হাজার কোটি টাকার করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। করোনাকালে অনেক চিকিৎসক ও নার্স মারা গেছেন। তবু কোনো চিকিৎসক কাজ না করে পালিয়ে যাননি। আর বিএনপির লোকেরা পার্লামেন্টের ভেতরে ও বাহিরে শুধু মিথ্যাচার করে বেড়ায় যে করোনার সময় নাকি হাসপাতালে কোনো চিকিৎসা সেবা পায়নি। অথচ করোনার সময় বিএনপির একটি লোকও মানুষের পাশে ছিল না।

মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) বিকেলে মাদারীপুরের শিবচরে নূর ই আলম চৌধুরী অডিটোরিয়ামে উপজেলা স্বাস্থ্যসেবা খাতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

তিনি আরও বলেন, পেছেনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসা বিএনপি এখন লাঠি নিয়ে মিছিল করে। সরকারকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়ার স্বপ্ন দেখে। তারা জানে না হিমালয় পর্বতকে ধাক্কা দিয়ে ফেলা যায় না। আওয়ামী লীগ সরকার হচ্ছে হিমালয় পর্বতের মতো, এ কথাটি তাদের মনে রাখতে হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রথম ধাপেই ভ্যাকসিনের অর্ডার দিতে খরচ হয়েছে ৭ হাজার কোটি টাকা। তিন দিনের মধ্যেই কাজটি করা হয়েছে। করোনার পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভ্যাকসিনের সিরিঞ্জ সংকট থাকায় তা বিমানে করে রাতারাতি আনা হয়েছে। করোনার সময় চিকিৎসক ও নার্সরা পালিয়ে যাননি। প্রত্যেকেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী এমপি, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো. সাইফুল হাসান বাদল, মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী প্রমুখ।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু মহাসড়কের পাশে নির্মিত ইলিয়াছ আহম্মেদ চৌধুরী ট্রমা সেন্টার ও বড় বাহাদুপুর এলাকায় নির্মিত শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজি (আইএইচটি)-এর উদ্বোধন করেন। এসময় মন্ত্রী বেশ কয়েকটি নতুন কাজেরও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

সূত্র: ঢাকা পোস্ট
আইএ/ ০৮ নভেম্বর ২০২২

Back to top button