সাতক্ষীরা

গণপিটুনি থেকে বাঁচতে ৫ চোরের ৯৯৯ ফোন

সাতক্ষীরা, ৩১ অক্টোবর – ৯৯৯ এ কল করে গণপিটুনি থেকে রক্ষা পেলেন পাঁচ চোর। সাতক্ষীরার সদর উপজেলার পায়রাডাঙ্গা গ্রামে একটি মৎস্য ঘেরে চুরি করতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ইতোমধ্যে তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। তারা হলেন সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পায়রাডাঙ্গা গ্রামের সাইফুল ইসলাম, মোস্তাকিন হোসেন, মিজানুর রহমান, হুসাইন বাবু ও শাহারুল ইসলাম।

স্থানীয় ঘের মালিক শরিফুল জানান, সাতক্ষীরার পায়রাডাঙ্গা দক্ষিণ বিলে তাদের পাঁচ বিঘার একটি মৎস্য ঘের রয়েছে। রবিবার ভোর রাতে আটক ওই পাঁচজন জাল দিয়ে তাদের ঘের থেকে মাছ ধরতে শুরু করেন। তখন পার্শ্ববর্তী ঘেরে থাকা আব্দুল্লাহ নামে একজন মাছ চুরির বিষয়টি দেখতে পেয়ে মোবাইল ফোনে তাকে খবর দেন। তাৎক্ষণিকভাবে লোকজন নিয়ে তাদের ধরার চেষ্টা করলে তারা আমাদের ধাক্কা দিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি ঘরের বারান্দায় আশ্রয় নেন। পরে ওই চোরের দল জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে। কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করে। নিয়ে যায় থানায়।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জেহাদ ফখরুল আলম খান জানান, আটকদের মধ্যে যে কেউ জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে সাহায্য চেয়ে জানান, তারা খুব বিপদে রয়েছেন। তাদের উদ্ধার করতে হবে। পরবর্তীতে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। তারা ঘেরে মাছ চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে গণপিটুনির হাত থেকে রক্ষা পেতে পুলিশকে ফোন করেন। মাছ চুরির ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। তাদের এই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র: বিডি প্রতিদিন
এম ইউ/৩১ অক্টোবর ২০২২

Back to top button