জাতীয়

মন্ত্রিপরিষদ সচিব পদে আলোচনায় যাঁরা

দেলওয়ার হোসেন

খনিজ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মাহবুব হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব জিয়াউল হাসান, বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কবির বিন আনোয়ার, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব গোলাম মো. হাসিবুল আলম এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব তপন কান্তি ঘোষ (বাঁ থেকে)

ঢাকা, ৩১ অক্টোবর – প্রশাসনের সর্বোচ্চ পদ হলো মন্ত্রিপরিষদসচিব। বর্তমান মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের দ্বিতীয় দফা চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ১৫ ডিসেম্বর। ফলে এ পদে নিয়োগ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা।

সাধারণত মন্ত্রিপরিষদসচিব হিসেবে প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে একজনকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

সেই হিসেবে আলোচনায় আছেন বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কবির বিন আনোয়ার, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব গোলাম মো. হাসিবুল আলম, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মাহবুব হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব জিয়াউল হাসান এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব তপন কান্তি ঘোষ।

কবির বিন আনোয়ার বিসিএস সপ্তম ব্যাচের কর্মকর্তা। তিনি এখন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব। তিনি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ছিলেন। তাঁর নাম মন্ত্রিপরিষদসচিব পদে আলোচনায় আসায় বরিশালের সিটি মেয়রের সঙ্গে স্থানীয় প্রশাসনের দ্বন্দ্বের সময় অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে তাঁর দেওয়া বিবৃতিকে এখন অনেকে সামনে নিয়ে আসছেন। ওই বিবৃতিকে প্রশাসন ও রাজনীতিকদের মধ্যে বিরোধের প্রতীক হিসেবে অন্যরা তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবহার করছেন।

এই পদে বাকি যে কজনের নাম আলোচনায় আছে তাঁরা অষ্টম ব্যাচের কর্মকর্তা। এর মধ্যে গোলাম মো. হাসিবুল আলম পটুয়াখালী জেলার ডিসি ছিলেন। অন্য কর্মকর্তাদের মাঠ প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকরির অভিজ্ঞতা নেই।

নির্বাচনকালীন সময় মাঠ প্রশাসনকে সামাল দেওয়া সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ। তাই বর্তমান মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামকে আরেকবার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না সচিবালয়কেন্দ্রিক সূত্রগুলো। খন্দকার আনোয়ার ১৯৮২ সালের বিসিএস বিশেষ ব্যাচের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা।

সূত্র : কালের কন্ঠ
এন এ/ ৩১ অক্টোবর

Back to top button