নোয়াখালী

পিটিয়ে ছুরি মেরে কলেজছাত্রকে হত্যা, প্রধান অভিযুক্ত আটক

নোয়াখালী, ১১ অক্টোবর – নোয়াখালীতে এক কলেজছাত্রকে পিটিয়ে ও ছুরি মেরে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় পৌর এলাকার মাইজদী চন্দ্রপুর গ্রামে ওই ছাত্রের বাসার সামনে ১০ থেকে ১২ তরুণ এ হামলা চালায়। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত এক কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ।

নোয়াখালীতে নিহত কামরুল হাসান জোবায়ের (১৭) নোয়াখালী আইডিয়াল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

সে জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার রাজগঞ্জের কামাল উদ্দিনের ছেলে।
এলাকাবাসী জানায়, সোমবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে জোবায়ের বাসায় আসার পথে পাশের এলাকার কিশোর রাকিব হাসানের (১৪) সঙ্গে দেখা হয়। তখন রাকিব জোবায়েরকে তার নাম ধরে ডাকায় জোবায়ের রাকিবকে একটি চড় মারে। এর জের ধরে মাগরিবের নামাজের পর রাকিব তার দুই ভাই পিয়াস, আরিফসহ বাইরের এলাকা থেকে ১০ থেকে ১২ জন ছেলেকে (যাদের বয়স ১৪ থেকে ১৮ বছর) নিয়ে জোবায়েরের বাসার সামনে আসে। জোবায়েরকে পাশের বাসার লাদেনকে দিয়ে মোবাইল ফোনে কল করে বাসা থেকে বের করে আনা হয়।

পরে রাকিবসহ ১০ থেকে ১২ জন কিশোর জোবায়েরকে পেটায় এবং রাকিব পেটে ছুরি মেরে পালিয়ে যায়। তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে দ্রুত নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করেন। ঢাকায় নেওয়ার পথে কুমিল্লায় তার মৃত্যু হয়।

পরে এ ঘটনায় গোয়েন্দা শাখা ও সুধারাম থানা পুলিশ তিনজনকে আটক করলেও প্রধান অভিযুক্ত রাকিবকে রেখে অন্যদের ছেড়ে দেয়।

সুধারাম থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। এ ঘটনায় একজন আটক রয়েছে। ’

সূত্র: কালের কণ্ঠ
আইএ/ ১১ অক্টোবর ২০২২

Back to top button