উত্তর আমেরিকা

বিশেষ বিমানে সরানো হলো ৯০টি কুকুর-বিড়াল

কৌশলী ইমা

ওয়াশিংটন, ০৫ অক্টোবর – যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার উপকূলীয় এলাকায় শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়ানের আঘাতে বিধ্বস্ত ফ্লোরিডা থেকে অন্যত্র সরানো হয়েছে পোষা প্রাণীকে। ইতোমধ্যে বিশেষ বিমানে ৯০টি পোষা কুকুর ও বিড়ালকে নিউ জার্সিতে স্থানান্তর করে নিরাপদ আশ্রয় দেওয়া হয়েছে।

ফ্লোরিডার ন্যাপোলস এবং ফোর্ট ম্যায়ার্স থেকে এসব পোষা কুকুর ও বিড়ালকে স্থানান্তর করা হয়। ঘূর্ণিঝড় ইয়ানে ফ্লোরিডার সবচেয়ে বিপর্যস্ত শহরগুলোর অন্যতম হচ্ছে ন্যাপোলস এবং ফোর্ট ম্যায়ার্স। এসব শহর থেকে বিপন্ন লোকজনকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল। লোকজনের ভেঙ্গে পড়া ঘরবাড়ির ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

বাড়ি পুনঃনির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ঘরবাড়ি ছেড়ে যাওয়া লোকজনের বহু পোষা কুকুর ও বিড়াল হঠাৎ করেই আশ্রয়হীন হয়ে পড়ে। এসব গৃহহীন পশুর আশ্রয়ের দ্রুত উদ্যোগ নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। গত ২ অক্টোবর রোববার একটি বিশেষ বিমানে ৯০টি পোষা কুকুর ও বিড়াল নিউজার্সিতে স্থানান্তর করা হয়। নিউ জার্সির মেডিসন শহরের হিউবার্ট এনিমেল উয়েলফেয়ার সেন্টারে। পোষা কুকুর বিড়ালদের এ আশ্রয়কেন্দ্রে এর আগে পোর্টরিকোতে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময়ে বিপুল সংখ্যক কুকুর বিড়ালকে আশ্রয় দেয়া হয়।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় ইয়ানের আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে কমপক্ষে ৮৫ জন হয়েছে। ঝড়ের সময় দায়িত্ব ‘অবহেলার’ জন্য কিছু কর্মকর্তা সমালোচনার মুখে পড়েছেন। গত বুধবার ফ্লোরিডার উপকূলীয় অঞ্চলে ভয়ঙ্কর ঝড়টি আঘাত হানে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি)।

এনএইচসি জানায়, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়গুলোর মধ্যে একটি ইয়ান। দক্ষিণ ক্যারোলিনার উপকূলে ইয়ানের আঘাতে চারটি জেটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জনপ্রিয় সমুদ্রতীরবর্তী শহর মার্টল বিচসহ আশপাশের এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়।

শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত দক্ষিণ ক্যারোলিনার প্রায় দুই লাখ বাড়িঘর ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন ছিল। উপকূলীয় লি কাউন্টিতে শেরিফ অফিস জানিয়েছে, তারা ৪২ জনের মৃতদেহ পেয়েছে। প্রতিবেশী কাউন্টি থেকে ৩৯ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে।

এলাকার বাসিন্দাদের সঠিক সময়ে সরিয়ে নিয়েছে কিনা- এই প্রশ্নের মুখে পড়েছে লি কাউন্টি কর্তৃপক্ষ। কাউন্টির কমিশনার বোর্ডের চেয়ারম্যান সেসিল পেন্ডারগ্রাস রবিবার বলেছেন, হারিকেনের গতি স্পষ্ট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার আদেশ দেওয়া হয়েছিল। তারপরও কিছু লোক ঝড়ের সময় বাইরে বেরিয়েছে।

এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমি তাদের পছন্দকে সম্মান জানাই। কিন্তু আমি নিশ্চিত যে তাদের অনেকেই এখন অনুশোচনা করছে।

ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর ডেন ক্রিসওয়েল বলেন, ফেডারেল সরকার ক্ষতিগ্রস্তদের বড় অঙ্কের সহায়তার পরিকল্পনা করেছে। এ ক্ষেত্রে ফ্লোরিডাকে প্রাধান্য দেওয়া হবে। আগামী বুধবার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেনের বিধ্বস্ত ফ্লোরিডা পরিদর্শনের কথা রয়েছে।

সূত্র: যুগান্তর
আইএ/ ০৫ অক্টোবর ২০২২

Back to top button