এশিয়া

ইউক্রেনের অধিকৃত অঞ্চল নিয়ে পুতিনের ঘোষণা আজ

মস্কো, ৩০ সেপ্টেম্বর – রাশিয়া-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী ও মস্কোর নিয়ন্ত্রণে থাকা ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে গণভোট শেষে বিজয় ঘোষণা করেছে রাশিয়া। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই অঞ্চলগুলোকে নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন বলে জানা গেছে। ক্রেমলিনে একটি অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেবেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। বৃহস্পতিবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

পেসকভ বলেন, শুক্রবার গ্র্যান্ড ক্রেমলিন প্যালেসের জর্জিয়া হলে নতুন অঞ্চলগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে একটি অনুষ্ঠান হবে। এতে প্রেসিডেন্ট পুতিন ভাষণ দেবেন।

এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া এবং খেরসন অঞ্চলকে ‘স্বাধীন’ ঘোষণা করেন।

৭ মাসের লড়াইয়ে রাশিয়ার এটি বড় অর্জন বলে মনে করা হচ্ছে এসব অঞ্চল দখলে নেওয়া। যদিও গণভোটের আয়োজন করে এসব অঞ্চলকে অধিকরণের বিষয়টি তীব্রভাবে প্রত্যাখ্যান করছে ইউক্রেন ও তার পশ্চিমা মিত্ররা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট পুতিন একটি ডিক্রি জারি করেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমি দক্ষিণ ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া ও খেরসনের রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব এবং স্বাধীনতার স্বীকৃতির আদেশ দিচ্ছি’।

রুশ-অধিকৃত অঞ্চলে সংগঠিত গণভোটের পর শুক্রবার ক্রেমলিনে একটি অনুষ্ঠানে দোনেস্ক ও লুহানস্কের স্বঘোষিত প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে দুটি অঞ্চল রাশিয়ায় অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে। যেখানে ৯৯ শতাংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা দাবি করা হচ্ছে, রাশিয়ায় যোগদানের পক্ষে। এর আগে প্রেসিডেন্ট পুতিন গত ফেব্রুয়ারিতে দোনেৎস্ক এবং লুহানস্কের ‘স্বাধীনতার’ স্বীকৃতি দেন।

একইভাবে গণভোটের আয়োজন করে ৮ বছর আগে ২০১৪ সালে ক্রিমিয়া দখল করেছিল রাশিয়া। গ্র্যান্ড ক্রেমলিন প্রাসাদের সেন্ট জর্জিয়া হলে স্থানীয় সময় বিকাল ৩ টার দিকে অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা, যেখানে প্রেসিডেন্ট পুতিন ভাষণ দেবেন।

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস নিউইয়র্ক সিটিতে সাংবাদিকদের বলেছিলেন যে রাশিয়ার এই সংযুক্তি জাতিসংঘের সনদ লঙ্ঘন করবে এবং এটির ‘কোনো আইনী ভিত্তি নেই’।

এদিকে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি শুক্রবার জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা কাউন্সিলের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। কিয়েভ এর আগে রাশিয়ার এই আগ্রাসনকে প্রত্যাখ্যান করে।

ইউক্রেনের অধিকৃত ওই ৪টি অঞ্চলে গণভোটে ৯৬ শতাংশ ভোট পাওয়ার পর বিজয় ঘোষণা করে রাশিয়া। রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের উপপ্রধান দিমিত্রি মেদভেদেভ বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ভোরে তার অফিসিয়াল টেলিগ্রাম চ্যানেলে লেখেন, গণভোট শেষ হয়েছে। তিনি বলেন,‘ফলাফল পরিষ্কার’। এসময় তিনি আরও বলেন, ‘রাশিয়ায় স্বাগত’।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button