ইউরোপ

ঘোষণার ৩ ঘণ্টা আগেই মারা যান রানি, প্রকাশ্যে মৃত্যুসনদ

লন্ডন, ২৯ সেপ্টেম্বর – প্রয়াত ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুসনদ প্রকাশ করা হয়েছে। সনদ অনুযায়ী, গত ৮ সেপ্টেম্বর স্কটল্যান্ডের বালমোরাল প্রাসাদে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর।

সনদে উল্লেখ করা তথ্য বলছে, স্থানীয় সময় বিকেল ৩টা ১০ মিনিটে মৃত্যু হয়েছিল রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের। অর্থাৎ এর প্রায় তিন ঘণ্টা পরে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয় তার মৃত্যুর খবর।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রানির মৃত্যুসনদ প্রকাশ করেছে ন্যাশনাল রেকর্ডস অব স্কটল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। এতে তথ্যদাতা হিসেবে তার কন্যা প্রিন্সেস অ্যানের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

সনদে উল্লেখিত সময় হিসাব করলে দেখা যায়, রানির মৃত্যুর সময় তার পাশে ছেলে চার্লস (বর্তমান রাজা) ও মেয়ে অ্যান ছাড়া পরিবারের আর কেউ ছিলেন না।

প্রিন্স উইলিয়াম, প্রিন্স অ্যান্ড্রু, প্রিন্স এডওয়ার্ড ও তার স্ত্রী, ওয়েসেক্সের সোফি কাউন্টেস রানি মারা যাওয়ার সময় প্লেনে ছিলেন। তারা পশ্চিম লন্ডনের সাউথ রুইসলিপ থেকে বালমোরাল যাওয়ার উদ্দেশ্যে স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৩৯ মিনিটে যাত্রা করেন এবং পৌঁছান এক ঘণ্টা পরে।

প্রিন্স হ্যারি তার ভাইয়ের সঙ্গে একই প্লেনে ছিলেন না। দাদি মারা যাওয়ার পরে লুটন থেকে প্লেনে করে স্কটল্যান্ডের উদ্দেশে যাত্রা করেন তিনি। প্রাসাদ থেকে রানির মৃত্যুর খবর ঘোষণার ১৬ মিনিট পরে সন্ধ্যা ৬টা ৪৬ মিনিটে অ্যাবারডিনে অবতরণ করেন হ্যারি।

সনদে রানির মৃত্যু নিশ্চিত করা নিবন্ধিত মেডিক্যাল কর্মকর্তা হিসেবে ডগলাস জেমস অ্যালানের নাম লেখা রয়েছে।

এতে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর একমাত্র কারণ বার্ধক্য বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তার স্বামী প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুও একই কারণে হয়েছিল।

সূত্র: জাগোনিউজ
আইএ/ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

Back to top button